যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে নিজেই নিরুদ্দেশ স্বামী!

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে নিজেই নিরুদ্দেশ স্বামী!

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে যৌতুক না পেয়ে ৪ সন্তানের জননী সানজিদা বেগম নামের এক নারীকে পিটিয়ে পালিয়ে গেছেন স্বামী। এব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই স্ত্রী।

অভিযোগ সুত্র মতে, দীর্ঘ ১৮ বছর আগে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ভেওলা মানিকচর ইউনিয়নের দক্ষিন বহদ্দারকাটা এলাকার মৃত নজির আহমদের ছেলে নুরুল আমিন ওরফে বাবুলের (৪২) সাথে টেকনাফ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড চৌধুরী পাড়া এলাকার আব্দুল গফুরের মেয়ে সানজিদা বেগমের সাথে বিয়ে হয়। এরপর থেকে খুব সুন্দর সুখ আর শান্তিতে চলতে থাকে তাদের সংসার জীবন। এই ১৮ বছরের ব্যবধানে তাদের সংসারে পরপর ৪টি সন্তান জন্ম নেয়। তারা হচ্ছে হুমায়রা জন্নাত মুন্না (১৬), জান্নাত আরা মুন্নি (১২), নয়ন মনি রুবি (৮) ও রোহান চৌধুরী বাপ্পি (৬)। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, এখানে হঠাৎ করে স্বামী নুরুল আমিন বিগত এক বছর আগে এক রোহিঙ্গা মেয়ের পাল্লায় পড়েন। এরপর থেকে স্ত্রী সানজিদার সংসারে নেমে আসে অশান্তির কালো ছায়া। স্বামী দাবী করে শ্বশুরের কাছ থেকে এক লাখ টাকা যৌতুক।

অভিযোগ মতে, এই যৌতুকের জন্য কারণে অকারণে স্ত্রীকে মারধর করে প্রতিনিয়ত। এমনকি ভরণ পোষনও দেওয়া বন্ধ করে দেয় স্বামী। তবুও স্ত্রী সংসারের কথা চিন্তা করে স্বামীর সমস্ত অমানবিক নির্যাতন মুখ বুঝে সহ্য করেন। অবশেষে স্ত্রীর কাছ থেকে দাবীকৃত যৌতুক আদায় করতে না পেরে ২০১৮ সালের ১০ জুলাই স্ত্রী সানজিদাকে লাঠি দিয়ে পুনরায় বুকে পিঠে শরীরের বিভিন্ন অংশে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে যায়।

স্ত্রী জানতে পেরেছিল, স্বামী তাকে মারধর করার পর উখিয়ার পালংখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চলে গিয়েছিল। কিন্তু তারপর থেকে স্বামী নুরুল আমিনকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও অদ্যাবধি তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি বলে জানান অভিযোগকারী ৪ সন্তানের জননী সানজিদা।

তিনি টেকনাফ উপজেলার আইন প্রয়োগকারী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

এব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এবিএমএস দোহা জানান, অভিযোগ এখনো হাতে আসেনি। যদি আসে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!