নারী এনজিও কর্মীকে যৌন হয়রানি, ‘রিক’র দুই কর্মকর্তা পুলিশ হেফাজতে

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার রোহিঙ্গা শিবিরে কর্মরত দুই এনজিও কর্মকর্তাকে যৌন হয়রানির অভিযোগে পুলিশ আটক করেছে। আটক দুই ব্যক্তি রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) নামের একটি এনজিওর কর্মকর্তা।
এদের মধ্যে সাহেল সানজিদ রিকের প্রকল্প সমন্বয়কারী ও অন্যজন সেলিম উল্লাহ মনিটরিং কর্মকর্তা।

আটক দুই এনজিও কর্মকর্তা রবিবার রাতে এই প্রতিবেদন লেখাকালীন পর্যন্ত (রাত ২টা) উখিয়া থানায় ছিলেন।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের বলেছেন, দুই কর্মকর্তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই মামলা হবে।

জানা গেছে, রোহিঙ্গা শিবিরে ‘রিক’ নামের বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় কর্মরত এক নারী কর্মীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ এই দুই কর্মকর্তাকে শনিবার রাতে আটক করেন।

আটক হওয়া কর্মকর্তা সাহেল সানজিদ নওগাঁ জেলার বাসিন্দা এবং সেলিম উল্লাহ কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বাসিন্দা।

এনজিওটিতে কর্মরত ওই নারী কর্মীর অভিযোগ, সেলিম উল্লাহ নামের কর্মকর্তা তাকে (মেয়েটি) নানা প্রলোভন দেখিয়ে বারবার কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল।

অপরদিকে ‘রিক’ এনজিওর এই নারী কর্মী একই এনজিওর কর্মকর্তা সেলিম উল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপনের পর সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করেন।

সেই তদন্ত কমিটির প্রধান হচ্ছেন প্রকল্প সমন্বয়কারী সাহেল সানজিদ। বারবার যৌন হয়রানির শিকার হওয়া নারী কর্মী প্রকল্প সমন্বয়কারী সাহেল সানজিদের কাছে সেলিম উল্লাহর বিষয়ে তদন্তের ফলাফল জানতে গেলে উল্টো সাহেল সানজিদ নিজেও এক পর্যায়ে মেয়েটিকে কুপ্রস্তাব দিয়ে বসেন বলে অভিযোগ উঠে।

এ বিষয়ে মেয়েটি পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ আটকের পর থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। তবে এনজিও কর্মকর্তাদ্বয় তাদের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

এ ব্যাপারে রিক’র সহকারী পরিচালক দীপক রঞ্জন চক্রবর্তী জানান, প্রাথমিক একটি অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় অভিযুক্ত সেলিম উল্লাহকে কারণ দর্শাও নোটিশ দেয়া হয়েছে। অপর কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এখনো কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

উখিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নুরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত হয়েছি। জড়িত এনজিও কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বেও এনজিও কর্মকর্তা সেলিম উল্লাহর বিরুদ্ধে অন্যান্য নারী এনজিও কর্মীদের পক্ষেও পুলিশের কাছে যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!