তাসকিনকে নিয়েই আয়ারল্যান্ড যাচ্ছে বাংলাদেশ

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে ফরহাদ রেজার থাকাটা নিশ্চিতই ছিলো। তবে তাসকিন আহমেদ ও শফিউল ইসলামের মধ্যে কে থাকবেন- এ নিয়ে ছিলো সংশয়। রবিবার সব কিছুর অবসান ঘটিয়ে ফরহাদ রেজার সঙ্গী হিসেবে তাসকিনকেই বেছে নিয়েছেন নির্বাচকরা।

বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন আয়ারল্যান্ডে ১৮তম সদস্য হিসেবে ফরহাদ রেজা এবং ১৯তম সদস্য হিসেবে যাচ্ছেন তাসকিন আহমেদ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে এমন তথ্য। আকরাম অবশ্য এর ব্যাখ্যা দিয়েছেন আলাদাভাবে, ‘তাদের ব্যাপারে কোচদের খুব আগ্রহ ছিলো। সেই সঙ্গে মোস্তাফিজ-রুবেলের বিকল্প হিসেবেই তাদের বিবেচনা করা হয়েছে।’

ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে দলে ডাক পেয়েছেন ফরহাদ রেজা। সদ্য সমাপ্ত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ১৬ ম্যাচে ৩৮ উইকেট নিয়ে আসরের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি। এছাড়া ব্যাট হাতেও ছিলেন কার্যকরী। নিয়েছেন ২০৭ রান। এর আগে লিগের টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলোতে ৪ ম্যাচে ১১ উইকেট ও ২২৭.৬৫ স্ট্রাইক রেটে রান করেছেন ১০৭। ঘরোয়া লিগে সাম্প্রতিক এই ফর্মই ২০১৪ সালের পর তাকে পুনরায় জাতীয় দলে খেলতে সুযোগ করে দিয়েছে। ফরহাদ রেজা এক সময় নিয়মিত ছিলেন জাতীয় দলে। খেলেছেন ৩৪ ওয়ানডে এবং ১৩ টি-টোয়েন্টি। তবে ওয়ানডে খেলেছেন আরও আগে। ২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে সবশেষ মাঠে নেমেছিলেন এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

অন্যদিকে ইনজুরির কারণে প্রিমিয়ার লিগে সিংহভাগই খেলতে পারেননি তাসকিন। তবে তিন ম্যাচের মধ্যে একটিতে নিয়েছেন ৪ উইকেট। এছাড়া ২ উইকেট নিয়েছিলেন অন্য ম্যাচে। ইনজুরিতে পড়ার আগে সবশেষ বিপিএলে ২২ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও ছিলেন। পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ গত কয়েকদিন তাসকিনকে পর্যবেক্ষণ করে তার ফিটনেস নিয়ে সন্তুষ্টিও প্রকাশ করেছিলেন।

আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সঙ্গে নিয়ে এই ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু হবে ৫ মে।
ত্রিদেশীয় সিরিজের দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, সাইফউদ্দিন, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মোসাদ্দেক হোসেন, আবু জায়েদ রাহী, নাঈম হাসান, ইয়াসির আলী রাব্বি, তাসকিন আহমেদ ও ফরহাদ রেজা।