খরুলিয়ার ভূমিদস্যু শফিকের ভাই রহিমকে আটক করলো পুলিশ

 

কক্সবাজার সদরের খরুলিয়ার বহুল আলোচিত অসহায় নারীর বসতভিটা অবৈধভাবে দখল চেষ্টার ঘটনায় কুখ্যাত ভূমিদস্যু শফিকুল ইসলামের ভাই আব্দুর রহিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বুধবার (২৪ এপ্রিল) বিকাল তিনটার দিকে খরুলিয়া ঘাটপাড়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মামলা নং-৮৪।

গত ২২ এপ্রিল বিকালে ভূমিদস্যু শফিকুল ইসলামসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে অসহায় সাজেদা খানমের মেয়ে সাবেকুন নাহার। মামলা দায়েরের একদিনের ব্যবধানে প্রধান আসামী আব্দুর রহিমকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হওয়ায় পুলিশকে সাধুবাদ জানিয়েছে সাধারণ মানুষ। দ্রুত অন্যান্য আসামীদেরও আইনের আওতায় আনার দাবী জানান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দীপক কুমার সিংহ গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আসামীর অবস্থান নিশ্চিত করে ঘাটপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে আসামী আব্দুর রহিমকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার বাদী সাবেকুন নাহার জানান, দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রধান আসামী গ্রেপ্তার হওয়ায় আমরা আশ্বস্ত হলাম। আমরা চাই অন্যান্য আসামীদেরও গ্রেপ্তার করা হোক।

সূত্রমতে, দীর্ঘদিন ধরে খরুলিয়া মাস্টারপাড়া এলাকায় অসহায় সাজেদা খানমের বসতভিটা অবৈধভাবে দখলের চেষ্টা চালায় স্থানীয় ঘাটপাড়া এলাকার শীর্ষ ভূমিদস্যু শফিকুল ইসলাম। এরই অংশ হিসেবে গত ৪ এপ্রিল সাজেদার বাড়িতে হামলা চালায় ভূমিদস্যু শফিকের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত। এরপর গত ১৬ এপ্রিল রাতে আবারও হামলা চালানো হয়। এসময় বসতভিটার গাছ কেটে ফেলা হয়। কিন্তু ভূমিদস্যু শফিক পুলিশকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে উল্টো সাজেদার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় সাজেদা খানম ও তার মেয়ে সাজিয়া আফরিন কারাভোগ করেন। এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে সাজেদার দুই মেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও প্রচার করে। ওই ভিডিও প্রচারের পর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে।সিবিএন।