চকরিয়া নির্বাচনে স্থগিত কেন্দ্রের ভোট ১৭ এপ্রিল

নিজস্ব প্রতিনিধি চকরিয়া
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থগিত হওয়া পালাকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ অনুষ্টিত হবে আগামী ১৭ এপ্রিল। জোরপূর্বক কেন্দ্র দখলের চেষ্টা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে গত ১৮ মার্চ অনুষ্টিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাচন কর্মকর্তা ওই কেন্দ্রটি স্থগিত ঘোষনা করে। ওই কেন্দ্রে ৪ হাজার ৭৬৮জন ভোটার রয়েছে।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা মো.সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘গত ১৮ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার ৯৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ৯৮টি কেন্দ্রে সুষ্ঠভাবে ভোটগ্রহন অনুষ্টিত হয়। ওইসময় পালাকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জোরপূর্বক কেন্দ্র দখল ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগ তুলে এক মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী। পরে ওই প্রার্থীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক ওই কেন্দ্রটি স্থগিত করা হয়। পরে নির্বাচন কমিশন আগামী ১৭ এপ্রিল স্থগিত কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের নির্দেশ দেন।
তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৯৮টি কেন্দ্রের ভোটেচেয়ারম্যান পদে ফজলুল করিম সাঈদী ও পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান পদে মকছুদুল হক চুট্টুকে সরকারীভাবে নির্বাচিত ঘোষনা করা হয়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে ওই কেন্দ্রের ভোটারের ব্যবধান বেশি হওয়ায় তাদের নির্বাচিত ঘোষনা করা হয়। কিন্তু স্থগিত হওয়া কেন্দ্রের ভোটে শুধুমাত্র মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে জয়-পরাজয় নির্ধারণ হবে। তিনজন মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন।
জানা গেছে, ওই কেন্দ্রে ৪ হাজার ৭৬৮ভোটার রয়েছেন। ৯৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ৯৮টি কেন্দ্রের ভোটে কলস প্রতিক নিয়ে জেসমিন হক ৩৫ হাজার ২৯৪ ভোট পেয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতিক নিয়ে সাফিয়া বেগম শম্পা পেয়েছেন ২৯ হাজার ৯০৩ ভোট। তাদের মধ্যে ভোটের ব্যবধান রয়েছে ৪ হাজার ৩৯১ ভোট। স্থগিত কেন্দ্রের ভোটারের চেয়ে ব্যবধান ভোটের পরিমাণ কম হওয়ায় ওই কেন্দ্রে ফের নির্বাচন হচ্ছে।