শেষ হলো নেপাল-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলন

শেষ হলো নেপাল-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলন

দু’দেশের সব রকমের সম্পর্কের ভিত আরও মজবুত এবং বন্ধুত্বপূর্ণ করতে যুবকদের কাজ করার জন্য আহ্বান জানিয়ে শেষ হয়েছে দ্বিতীয় নেপাল-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলন।

নেপালের ১নং প্রদেশের সানসুরি ইটাহারীর ওয়াইডিসি’তে তিনদিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত সম্মেলনের রোববার সমাপনী দিনে প্রধান অতিথি ছিলেন ১নং প্রদেশের প্লানিং কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান সুবোধ রাজ পায়াকোরাল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ১নং প্রদেশের সংসদ সদস্য লিলাম বাসনেট ও নবদিতা চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য এবং আইন প্রণয়ন কমিটির সমন্বয়ক রিওয়াতি বানধারী, অ্যাসোসিয়েশন অব ইয়ুথ অর্গানাইজেশন নেপালের (আইয়ন) প্রেসিডেন্ট জগদীশ আয়ার ও ২য় নেপাল-বাংলাদেশ ইয়ুথ কনক্লেভের বাংলাদেশ সমন্বয়ক বাপ্পাদিত্য বসু। সভাপতিত্ব করেন যুব সম্মেলনের চেয়ারম্যান অভিনব চৌধুরী।

পরে অংশগ্রহণকারীদের হাতে সার্টিফিকেট ও সম্মাননা তুলে দেন প্রধান অতিথি ও অন্য অতিথিবৃন্দ।

ইতিপূর্বে ইটাহারীর ইয়ুথ ডেভলপমেন্ট সেন্টারে শুরু হওয়া আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলনে বাংলাদেশ এবং নেপালের তরুণরা বিভিন্ন বিষয়ের তাদের মতামত এবং সংশ্লিষ্ট করণীয় তুলে ধরেন। পাশাপাশি স্ব-স্ব দেশের যুবকদের অবস্থান তুলে ধরে শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও ভারতের অংশগ্রহণকারী তরুণরা।

তিনদিন ব্যাপী এই সম্মেলনে যে সব বিষয়ে আলোচনা হয় সেগুলো ১. ইয়ুথ পার্টিসিপেশন, এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড পলিসি, ২. মাইগ্রেশন অ্যান্ড হিউম্যান ট্রাফিকিং, ৩. সাসটেইনেবল ডেভলপমেন্ট গোল (এসডিজি) অ্যান্ড ইয়ুথ, ৪. ইয়ুথ অ্যান্ড রোড সেফটি, ৫. সোস্যাল জাস্টিস অ্যান্ড ডিগনিটি, ৬. এন্ট্রিফ্রিনিয়ারশীপ, ফিনান্সিয়াল একসেস অব ইয়ুথ অ্যান্ড কো-অপারেটিভ, ৭. ক্লাইমেট চেইঞ্জ অ্যান্ড ডাইজেস্টার রিস্ক রিডাকসন, ৮. জেন্ডার ইকুয়্যালিটি-উইমেন পার্টিসিপেশন ইন ডিসিশান মেকিং, ৯. ট্রেড ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড ট্যুরিজম প্রমোশন, ১০. ইয়ুথ লিডারশীপ ও ১১. ইয়ুথ অ্যান্ড ড্রাগ এবিউজ।

প্রসঙ্গত, ওই সম্মেলনে কক্সবাজার থেকে অংশ গ্রহণ করেন রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের সভাপতি ও দৈনিক আপন কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক এইচ.এম নজরুল ইসলাম ও দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আজিম নিহাদ।