‘প্রভাবমুক্ত’ সময়ে যারা আবছারকে পছন্দের প্রার্থী বানিয়েছেন তারাই ‘ঘোড়া’ প্রতীকে ভোট দেবেন!

কক্সবাজারের সাবেক পৌর চেয়ারম্যান নুরুল আবছারের বিচার শুরু

সুপ্রীম কোর্ট থেকে রায় নিয়ে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়া কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও কক্সবাজার পৌরসভার চারবার নির্বাচিত সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আবছার বলেছেন, যখন নির্বাচনী আলোচনা শুরু হয়, যখন মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার প্রক্রিয়া চলে আর যখন মনোনয়নপত্র জমা হয়ে যায় ওই সময়টা হলো ‘প্রভাবমুক্ত’ সময়। ‘প্রভাবমুক্ত’ ওই সময়ে অবচেতন মনে মানুষের মাঝে তাদের নিজেদের পছন্দের প্রার্থী বাছাই হয়ে যায়। তারপর শুরু হয় প্রচারণা, লেনদেন হয়, দেনদরবার হয়। তখন ভোটারের মানসিক অবস্থার পরিবর্তন হয়। কিন্তু প্রচারণা শেষে আবার যখন ৪৮ ঘন্টার প্রচারহীন সময় আসে তখন ৮০ ভাগ জনগণ আবারও তার আগের পছন্দে ফিরে আসেন।

এভাবেই নিজের অবস্থান তুলে ধরে নুরুল আবছার বলেন, আমি প্রচারণায় কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও ওই ‘প্রভাবমুক্ত’ সময়ে যারা আমাকেই নিজেদের পছন্দ বানিয়ে নিয়েছিল তারাই ‘প্রচারহীন’ সময়ে আবারও নিজেদের সিদ্ধান্তে ফিরে আসবেন। তারাই ‘ঘোড়া’ প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করবেন।

তিনি মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) দুপুরে কক্সবাজার প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। জসিম উদ্দিন নামের একজন ভোটারের রিটের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশে ‘প্রার্থিতা স্থগিত’ ও আবার সুপ্রীম কোর্টের চেম্বার জজ আদালতে নুরুল আবছারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ‘প্রার্থিতা বহাল’ নিয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতি নিয়ে তিনি ওই সংবাদ সম্মেলন ডেকেছিলেন।

তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, কেউ এখনও আমাকে ভয়ভীতি দেখায়নি। যদি ভয়ভীতি দেখায় তারও উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে।

নুরুল আবছার বলেন, আদালত যখন আমার প্রার্থিতা বহাল করে আদেশ দিচ্ছিলেন তখন প্রতিপক্ষ আইনজীবীরা পুরো নির্বাচনটিই স্থগিত করতে মৌখিক আবেদন জানিয়ে ছিলেন। কিন্তু আদালত তাদের মৌখিক আবেদনে সাড়া দেননি।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওই রিটের কারণে আমার নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যঘাত ঘটায় আমি মৌখিক ভাবে নির্বাচন কমিশন সচিবকে জানিয়েছি। তবে লিখিত আবেদন করবো কিনা এখনও ভাবিনি। মনে হয়, নির্বাচন পেছানোর আবেদন করবো না। আমি চাই না, নির্বাচনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় ব্যঘাত ঘটুক।

নির্বাচন ও রিট নিয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতি নিয়ে নুরুল আবছার টানা ২০ মিনিট ২০ সেকেন্ড সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্যে একজনের ভোটারের রিট, তার রিট করার এখতিয়ার, ওই রিট আদালতের কাছে গ্রহণযোগ্য কিনা, প্রতিপক্ষরা রিট নিয়ে কিভাবে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন তার বিস্তারিত তুলে ধরেন।

তাঁর মতে, একজন ভোটারের রিটের পর আদালত যে আদেশ দিয়েছেন তাতে তাঁর প্রার্থিতা স্থগিত হওয়ার মতো কোন আদেশ ছিল না। বরং হাইকোর্ট যে রুল জারি করেছিলেন সেই রুলের নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত আমার প্রার্থিতায় কোন প্রভাব পড়া কথা নয়।

তিনি বলেন, তারপরও জনগণের বিভ্রান্তি দূর করার জন্য আমি আবারও উচ্চ আদালতে গিয়েছি। আমার নির্বাচনে আর কোন প্রতিবন্ধকতা নেই। আর নতুন করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির কোন সুযোগও নেই।

নুরুল আবছারের পুরো বক্তব্যের ভিডিও দেখতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন।

প্রার্থিতা বাতিল ও ফিরে আসার গল্প বললেন নুরুল আবছার | Nurul Absar |

নুরুল আবছার চারবার নির্বাচিত কক্সবাজার পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান। এবার তিনি লড়ছেন কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাচনে। চেয়ারম্যান পদে লড়ার মাঝপথে এক ভোটার উচ্চ আদালতে মামলা করে নুরুল আবছারের প্রার্থিতা ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন। নুরুল আবছার আবার সেই প্রার্থিতা ফিরিয়ে এনেছেন।প্রার্থিতা বাতিল ও ফিরে আসার গল্প শুনিয়েছেন অনলবর্শী বক্তা নুরুল আবছার।

Posted by Ansar কক্সবাজার ভিশন on Tuesday, March 26, 2019