টেকনাফে ‘গোলাগুলি’তে রোহিঙ্গা ‘ডাকাত’ নিহত

টেকনাফে রোহিঙ্গা শিবিরে ‘রোহিঙ্গা ডাকাত’ দলের গুলিবর্ষণ, দুইজনকে গণধোলাই

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে আবু ছৈয়দ ওরফে সাদেক (৩৫) নামে এক রোহিঙ্গা যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের দাবি, নয়াপাড়া ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে সশস্ত্র রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের মধ্যে ‘গোলাগুলি’তে তার মৃত্যু হয়েছে।

নিহত মোহাম্মদ আবু ছৈয়দ ওরফে সাদেক নয়াপাড়া ক্যাম্পের এইচ ব্লকের এমআরসি নং-৮৮৭৮, শেড নং-৬৩৭ এর বাসিন্দা মোহাম্মদ জলিলের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়দের দাবি, সাদেক ডাকাত ও সশস্ত্র গ্রুপের সদস্য।

নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্প পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুস সালাম জানান, মঙ্গলবার সকালে নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের পার্শ্ববর্তী মীর আহমদের ঘোনা নামক এলাকায় ‘গোলাগুলি’র শব্দ পেয়ে অভিযানে যায় পুলিশ। সেখানে সকাল ৬টার দিকে গিয়ে রোহিঙ্গা ডাকাত সাদেকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ পাওয়া যায়।

তিনি জানান, মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর ময়নাতদন্তের জন্য তা কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, গত মাসে কুখ্যাত ডাকাত সর্দার নুরুল আলম বন্দুকযুদ্ধে নিহতের পর ক্যাম্প কেন্দ্রিক তার গ্রুপ এবং প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ আধিপত্য বজায় রাখতে খুন, অপহরণ, হামলা ও মুক্তিপণ আদায়ের মাত্রা বাড়িয়েছে।

তিনি ধারণা করছে, সাদেক নিহতের ঘটনাটিও এসব ঘটনার একটি।