এবার পিইসি মেধা তালিকায় স্থান হলো ইরহাম ও বাহারের

কক্সবাজার সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষায় কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুলের ছাত্র মোহাম্মদ শাহরিয়ার কবির ইরহাম প্রথম স্থানের পর এবার সম্প্রতি প্রকাশিত ২০১৮ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষার ফলাফলে ঈর্ষণীয় সফলতা পেয়েছে। একই সাথে কক্সবাজার পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডে অবস্থিত কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুল ছাত্র মোহাম্মদ তাওহীদুল ইসলাম বাহারও মেধাতালিকায় বৃত্তি লাভ করেছে।
এছাড়াও ওই স্কুলের সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি পেয়েছে শাহরিয়ার হাসান মাহাদী, মাইনুল হাসান নয়ন, মোহাম্মদ ফয়সাল, জান্নাতুন নাঈম তাসফিয়া, তাসলিমা সোলতানা ও রাবেয়া বছরী।
কক্সবাজার শহরে শিক্ষা-দীক্ষায় পিছিয়ে থাকা ও অনুন্নত এলাকার মধ্যে কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুলের এই ফলাফল অভূতপূর্ব সাফল্য। ইতোপূর্বে এই এলাকা থেকে মেধাতালিকায় কোন শিক্ষার্থী বৃত্তি লাভ করে নাই।
কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য কৃতি শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছে শিক্ষক অভিভাবক ও এলাকাবাসী। সফলতার জন্য স্কুলের শিক্ষকেরা মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন।
এদিকে, কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুল থেকে ২০১৭ সালে পিইসি পরীক্ষায় ১৯ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ১৮ জন জিপিএ-৫ ও একজন জিপিএ-৪.৮৩ পেয়ে গৌরব অর্জন করে।
২০১৯ সালে কক্সবাজার সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ ভর্তি পরীক্ষায় কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুলের ছাত্র মোহাম্মদ শাহরিয়ার কবির ইরহাম (প্রথম স্থান), মোহাম্মদ তাওহীদুল ইসলাম বাহার (১১ তম স্থান), মাইনুল হাসান নয়ন চান্স পায়।
সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় জান্নাতুন নাঈম তাসফিয়া, তাসনিম সোলতানা নূর মেধাতালিকায় উত্তীর্ণ হয়।
কক্সন মাল্টিমিডিয়া ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষা দীক্ষায় পশ্চাৎপদ ও অবহেলিত এলাকার গুণগত ও সৃজনশীল শিক্ষা বিস্তারে নিয়ামক শক্তি হিসেবে কাজ করছে।
পাশাপাশি শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন দুই সহোদর রাহাত ইকবাল ও মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন।