যে ছবি ভাইরাল

নবনির্বাচিত চেয়ারম‌্যান তরুণীকে জড়িয়ে ধরে এ কী করলেন!

নবনির্বাচিত চেয়ারম‌্যান তরুণীকে জড়িয়ে ধরে এ কী করলেন!

পার্বত‌্য বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আবুল কালামের কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোচনা-সমালোচণার জন্ম দিয়েছে। ইতিমধ্যে নিজের সংবর্ধনায় এক আদিবাসী ম্রো তরুণীকে জড়িয়ে ধরার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হয়ে পড়লে নানা ভাবে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। অনেকে বলেন, একজন জনপ্রতিনিধি কি একজন নারী বা তরুণীকে এভাবে জড়িয়ে ধরতে পারেন কিনা!

সময় টেলিভিশন ও সারাবাংলা ডটনেটের সাবেক সহকারী সম্পাদক মুনমুন শারমিন শামস তার ফেসবুক ওয়ালে ওই ছবি প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘আচ্ছা, ছবিগুলার দিকে তাকান তো! আচ্ছা আপনাদের কি গা গুলায় উঠতেসে না? মেয়েটার চোখ মুখ বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দেখে কষ্ট হচ্ছে না? লজ্জা আর অপমানিত লাগতেসে না?
আমার আসলে জানার ইচ্ছা, এই বাস্টার্ড আসলে কোন ক্ষমতার বলে বলীয়ান?
পাহাড়িদের এলাকায় সে বাঙালি বলে? নির্বাচিত চেয়ারম্যান বলে? নাকি প্রুষ বলে?
আমি জানতে চাই এই লোকটির বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হবে না? কেন আমরা চুপ করে থাকব?’

তিনি আরও লেখেন, ‘মো. আবুল কালাম, বান্দরবান জেলার আলীকদম উপজেলায় সম্প্রতি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হইসে। নির্বাচিত হওয়ার পর সে ম্রো আদিবাসীদের পাড়ায় গেসে সংবর্ধনা নেওয়ার জন্য। গিয়া এই সরল সিদা পাহাড়ি মেয়েটার গায়ের উপ্রে এম্নে হামলায় পড়সে, ছবি তুলসে।
একটা জনপ্রতিনিধি কি সংবর্ধনা নেয়ার নামে এইভাবে কোন মেয়েকে জড়ায়ে ধরতে পারে? সে কি এইগুলা করতে পারে? কে জবাব দেবে? এইটা কি কোন সভ্য দেশ?’

বান্দরবানের একটি অনলাইনে প্রকাশিত চারটি ছবির বাইরেও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া আরো কয়েকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ম্রো নৃগোষ্ঠির এক নারীকে জনসম্মুখে জড়িয়ে ধরে আছেন। ওই নারীর অভিব্যক্তিতে স্পষ্ট যে, তিনি এতে খুবই অস্বস্তি বোধ করছেন এবং জোর করে চেয়ারম্যানের হাত থেকে ছুটে যেতে চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে চেয়ারম্যান তাকে জোরপূর্বক এই আদিবাসী নারীকে ধরে রাখার চেষ্টা করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এই ম্রো একজন বিধবা নারী। ওই নারীর ভাই স্থানীয় এমএনপি কমান্ডারের ঘনিষ্ঠ হওয়ার সুবাদে চেয়ারম্যান আবুল কালাম ওই পাড়ায় সংবর্ধনা নিতে আসেন।

শুধু মুনমুন শারমিন শামস নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন কয়েকবারের নির্বাচিত একজন উপজেলা চেয়ারম্যান যতই জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধি হোক না কেন, তিনি এই ধরণের জড়িয়ে ধরে ছবি তুলতে পারেন কিনা।

প্রসঙ্গত, বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবুল কালাম গত ১৮ মার্চ আলীকদম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ‘দোয়াত-কলম’ প্রতীক নিয়ে জয়লাভ করেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগের প্রার্থী জামাল উদ্দিন।