টেকনাফে রোহিঙ্গা শিবিরে সন্ত্রাসিদের গুলিতে এক রোহিঙ্গার মৃত্যু, আরেকজন গুলিবিদ্ধ

স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার পর স্বামীর আত্মসমর্পণ

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরে সন্ত্রাসির গুলিতে মোহাম্মদ হোসেন (২৪) নামে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন।

নিহত হোসেন নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরের এইচ ব্লকের ৬৪৪ নাম্বার শেডের ৬ নাম্বার রুমের ৬১০০১ নাম্বার এমারসির বাসিন্দা আজিম উল্লাহর ছেলে।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন একই ব্লকের ৬৪৬ নাম্বার শেডের ২২ নাম্বার রুমের ১২৩৬৫ নাম্বার এমারসির বাসিন্দা শামসুল আলমের ছেলে মো: ইলিয়াছ (২৪)।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরের এইচ ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও পুলিশ জানান, ইয়াবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোহিঙ্গা ডাকাত মো. সাদেক, জকির ও সেলিমের নেতৃত্বে একদল অস্ত্রধারি শিবিরে এসে মো. হোসেনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। তার সহযোগী ইলিয়াছকেও ধরে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যেতে চাইলে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাদের লক্ষ্য করে গুলি করে সন্ত্রাসিরার। ওই সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে তারা দুইজনই মাটিতে পড়ে যান। পুলিশ গুলির খবর পেয়ে সেখানে ছুটে গেলে সন্ত্রাসিরা পাহাড়ের দিকে পালিয়ে য়ায়।

নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবির পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক কবির হোসেন এ ঘটনার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রাতে শিবিরের এইচ ব্লকে স্বশস্ত্র ডাকাত দলের গুলিতে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। এতে আরেক রোহিঙ্গা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

তিনি জানান, নিহতের লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। গুলিবিদ্ধ রোহিঙ্গাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সন্ত্রাসিদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।