উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির কোন প্রার্থী নেই, বললেন কাজল

উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির কোন প্রার্থী নেই, বললেন কাজল

কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির মৎস্যজীবী বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান কাজল বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বর নৈশকালিন ভুঁয়া ভোটের নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশে একটি প্রহসন সংঘটিত হয়েছে। দেশবাসি ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হওয়ায় চরমভাবে ক্ষুদ্ধ।

তিনি বলেন, মানুষ ভোটের ওপর বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছে। বিশ্বাস ফিরিয়ে আনার জন্য নির্বাচন কমিশন কোনো পদক্ষেপ এপর্যন্ত গ্রহণ করেনি।

এ পরিস্থিতিতে নির্বাচনে অংশ নেয়ার ন্যূনতম সুযোগ না থাকায় বিএনপি আগেই উপজেলা নির্বাচন বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ নির্বাচনে বিএনপির কোন প্রার্থী নেই, কেউ প্রার্থী হওয়া মানে দলের নির্দেশ অমান্য করা এবং সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে দলের যে সকল নেতাকর্মী এই ভোটে অংশ নেবেন কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাদের বহিস্কার করা হবে বলে উল্লেখ করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা লুৎফুর রহমান কাজল।

সোমবার (৪ মার্চ) বিকেলে কক্সবাজার জেলা বিএনপি কার্যালয়ে রামু উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মেরাজ আহমেদ মাহিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এক জরুরী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথাগুলো বলেন।

সভায় অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন রশিদনগর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল করিম চেয়ারম্যান, ঈদগড় বিএনপির সভাপতি আবু বক্কর ছিদ্দিক, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ফরিদুল আলম, কাউয়ারখোপ বিএনপির সভাপতি বদরুল হুদা মেম্বার, জোয়ারিয়ানালা বিএনপির সভাপতি এডঃ ফেরদাউস, রাজারকুল বিএনপির সভাপতি শাহাব উদ্দিন, গর্জনিয়া বিএনপির সভাপতি আব্দুল আলিম, চাকমারকুল বিএনপির সভাপতি শাহ আলম, কচ্ছপিয়া বিএনপির সভাপতি দিদারুল আলম, রামু উপজেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ফয়েজ উদ্দিন রাশেদ, বিএনপি নেতা ডাঃ ইব্রাহীম বাবুল, ফরিদুল আলম, আজিজুল হক আজু, মোহাম্মদ হানিফ জিহাদী, শফিকুর রহমান, আবু তালেব, উপজেলা যুবদলের সভাপতি মির্জা নুরুল আবছার, সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার আলম, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি এইচ এম মাসুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ছানা উল্লাহ্ সেলিম, বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম প্রমূখ।