কুতুবদিয়ায় পুড়ে ছাই ১২ দোকান

কুতুবদিয়ায় পুড়ে ছাই ১২ দোকান

কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ায় আগুনে পুড়ে গেলো ১২টি দোকান। রোববার (৩ মার্চ) ভোর তিনটার দিকে উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নের বিদ্যুৎ মার্কেটে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।

দীর্ঘ দুই ঘন্টা চেষ্টার পর ভোর পাঁচটায় এলাকাবাসি আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ওই সময় আগুনের ফুলকিতে আহত হন সুমন দাশ ওরফে বদন, খোরশেদ আলম, মোহাম্মদ ছৈয়দ নুর ও ইলিয়াছ সওদাগর।

মশার কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে ধারণা করছেন এলাকাবাসি।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ইমাম ফার্মেসীর মালিক ইমাম হোসেন জানান, শনিবার (২ মার্চ) রাতে প্রত্যেক দোকানদার দোকান বন্ধ করে যথানিয়মে বাড়িতে চলে যান। হঠাৎ ভোর রাত ৩টার দিকে এস.আর ফার্মেসীর পেছনে আগুন দেখা গেলে এলাকায় ‘আগুন আগুন’ বলে চিৎকার শোনা যায়। পরে এলাকাবাসি ঘটনাস্থলে আসার আগেই ১০ মিনিটের মধ্যে পাশের কয়েকটি দোকানে আগুন ছড়িয়ে পড়ে এবং তা দ্রুত সময়ের মধ্যে ১২টি দোকান পুড়িয়ে ছাই করে দেয়।

কুতুবদিয়ায় পুড়ে ছাই ১২ দোকান

অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ১২টি দোকানের মালিকদের মধ্যে রয়েছেন ডাক্তার শংকর পালের এসআর ফার্মেসী, প্রদীপ দাশের কম্পিউটার, মুদি ও বিকাশের দোকান, জামাল উদ্দিন ওরফে বদ’র মুদির দোকান, খোরশেদ আলমের চায়ের দোকান, ইমাম হোসেনের ফার্মেসী, টিটু দাশের সেলুন, রেজাউল করিমের চায়ের দোকান, ছৈয়দ নুর সওদাগরের ধানের আড়ৎ, কলিম উল্লাহর চায়ের দোকান, সুভাষ সওদাগরের মুদির দোকান, ওবাইদুল হোসেনের চায়ের দোকান, আবদুল কাদেরের বিকাশ ও চায়ের দোকান।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দীপক কুমার রায়, কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা।