এবার পাকিস্তানের নতুন সিদ্ধান্ত

সদস্য না হওয়া সত্ত্বেও ভারতকে আমন্ত্রণের প্রতিবাদে বিশ্বের শীর্ষ স্থানীয় ইসলামী সংঠন আয়োজিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নিচ্ছে না পকিস্তান। দেশটির শীর্ষ এক কূটনীতিক এ তথ্য জানিয়ে বলেন, বৈঠকটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে (ইউএই) হওয়ার কথা ছিল।

বার্তা সংস্থা এপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি ঘোষণা দেন, ইউএই’র রাজধানী আবুধাবিতে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) উদ্বোধনী অধিবেশনে অংশ নেবেন না। কাশ্মীরে বিতর্কিত অঞ্চলকে কেন্দ্র করে পারমাণবিক ক্ষমতাধর দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশের মধ্যেকার ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা সব মিলিয়ে তাদের সংঘর্ষের কাছাকাছি নিয়ে এসেছে।

আজ শুক্রবার পাকিস্তানের পার্লামেন্টে কুরেশি বলেন, ইউএই’র পররাষ্ট্র মন্ত্রী আব্দুল্লা বিন জায়েদ আল নায়েন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে আমন্ত্রণ করার সিদ্ধান্ত তুলে না নেওয়ায় তিনি ওআইসি’র ওই বৈঠকে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকবেন।

কুরেশি বলেন, ভারত ওআইসি সদস্যভুক্ত ৫৭টি দেশের মধ্যেও নেই আবার সংগঠনটির কোনো পর্যবেক্ষণেও নেই।

পাকিস্তানের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে উত্তেজনার জের ধরে তাদের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বিমানপথ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে বলা হয়, সরকারি নির্দেশে বিমানপথ বন্ধের এ সিদ্ধান্ত আজ দুপুর ১টা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। তবে তারপর খোলা হবে কি না, বন্ধই থাকবে তা পরবর্তী ঘোষণায় জানানো হবে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

গত বুধবার পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ভারতের দুটি যুদ্ধ বিমানকে ভূপাতিত ও একজন ভারতীয় পাইলটকে আটকের দাবি জানালে দেশটিতে বিমান ওঠানামা বন্ধ রাখা হয়। ওই পাইলটকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর মাধ্যমে চলমান উত্তেজনা হ্রাস পাবে বলে মনে করছে পাকিস্তান।