‘ভোটারের’ লাইন সাজিয়ে হঠাৎ উধাও তারা!

‘ভোটারের’ লাইন সাজিয়ে হঠাৎ উধাও তারা!

কেন্দ্রে ভোটার নেই। কিন্তু টেলিভিশন লাইভে দেখাতে হবে ভোটারের দীর্ঘলাইন। স্থানীয় লোকজনকে ডেকে এনে দাঁড় করিয়ে লাইন সাজিয়ে সেই ব্যবস্থাও করা হয়। এরপর সেখানে উপস্থিত অন্যান্য সাংবাদিকদের সামনেই চলতে থাকে সাজানো লাইনকে ভোটার বানিয়ে ভিডিও করা। বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা উত্তর সিটি মেয়র নির্বাচন শুরুর পর গুলশানে মানারাত স্কুল ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি না থাকায় এমন ঘটনা দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সকাল থেকেই ওই কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল না বললেই চলে। বেলা সাড়ে ১০টার কিছু পরে হঠাৎ দেখা যায় হঠাৎই একটি লাইনের আয়োজন করা হচ্ছে। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

ঘটনাস্থলে ছিলেন ফটো সাংবাদিক জীবন আহমেদ। তিনি বলেন, ‘ভোটকেন্দ্র সকাল থেকেই ফাঁকা। হঠাৎ জনা পঞ্চাশেক মানুষ একসঙ্গে কেন্দ্রে প্রবেশ করে। প্রথমে আমরা মনে করেছি কোনও প্রার্থী কেন্দ্রে আসছেন। এর পরপরই দেখি তারা একটি লাইনে দাঁড় হলো। এক টেলিভিশন সাংবাদিক তাদের সামনে দাঁড়িয়ে লাইভ দিতে থাকেন, এটি ভোটারদের লাইন-এই বলে।’

এই ফটোসাংবাদিক আরও বলেন, ‘সেসময় আমি পাশে থেকে শুনেছি রিপোর্টার বলছে, এখানে সবাই দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করছে ভোট দেওয়ার জন্য। এসময় সাজানো ভোটারদের অনুভূতিও রেকর্ড করা হয়। লাইনে দাড়ানো লোকজন সাক্ষাৎকার দিয়ে লাইন ভেঙে দ্রুত বেরিয়ে যায় কেন্দ্র থেকে।’

লাইভ শেষ হলে সঙ্গে সঙ্গে লাইনে দাঁড়ানো লোকজন এবং সাংবাদিক সেখান থেকে সরে যান।
কেন এমন করলেন জানতে চাইলে সেই টেলিভিশন রিপোর্টার বলেন, ‘আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি।’