বজ্রমেঘের প্রভাব, কক্সবাজারে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

বজ্রমেঘের সৃষ্টির কারণে কক্সবাজারসহ দেশের চার সমুদ্র বন্দর, সব উপকূলীয় এলাকায় তিন নম্বর সর্তক সংকেত জারি করা হয়েছে। এই মেঘের কারণে আগামী ২৪ ঘণ্টা দেশের বেশিরভাগ স্থানে বিশেষ করে উপকূলীয় এলাকাগুলোতে বজ্রসহ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে আজ মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হচ্ছে। আজ সকালে ঝড়ো হাওয়াসহ মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হয়েছে। রাতেও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ঝড়ের ভেতরে পড়ে সাতক্ষীরায় এক বৃদ্ধ নিহত, বাগেরহাটে ঝড়ে গাছচাপা পড়ে নারী-শিশুসহ ৫ জন আহত হয়েছে। মোংলায় পশুর চ্যানেলে ডুবে গেছে একটি ড্রেজার। অন্যদিকে, ব্যাপক বৃষ্টিপাতে খুলনা শহর প্লাবিত হয়ে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সব সমুদ্রবন্দর এবং উপকূলীয় জেলাগুলোর জন্য তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেওয়া হয়েছে।
তিনি জানান, বায়ুমণ্ডলে জলীয় বাষ্পের উপস্থিতি বেড়ে গেছে। এ কারণে বায়ুমণ্ডল অস্থির হয়ে পড়েছে। সৃষ্টি হচ্ছে বজ্রমেঘ। এই মেঘের কারণে বজ্রপাতসহ বৃষ্টি হচ্ছে। বজ্রপাতের কারণে উপকূলীয় এলাকায় দমকা হাওয়াসহ ঝড়ো বাতাস বয়ে যেতে পারে। তাই এই সতর্ক সংকেত দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের সতর্ক বার্তায় বলা হয়, বজ্রমেঘের ঘনঘটা বাড়ার কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।
এদিকে এই মেঘের প্রভাবে গত সোমবার ভোর থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি শুরু হয়। দুপুর পর্যন্ত অনেক এলাকায় বৃষ্টি হয়। দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত বৃষ্টি না থাকলেও সোমবার দিনগত রাতে আবার শুরু হয় বৃষ্টি । মঙ্গলবার সকালেও সেই বৃষ্টি অব্যাহত ছিল। সকালে ঢাকায় বৃষ্টির পরিমাণ কমে গেলেও যশোরসহ চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলে এই বৃষ্টির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি ছিল। সকাল ছয়টা পর্যন্ত বৃষ্টির পরিমাণ রেকর্ড করে আবহাওয়া অফিস জানায়, সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে যশোরে ৫৫ মিলিমিটার। এছাড়া ঢাকায় ৩১, ময়মনসিংহে ৩, হাতিয়ায় ৩৫, খুলনায় ১৩, বরিশালে ১২ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, আগামী ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ ও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ কারণে দিনের তাপমাত্রা সামান্য কমে যেতে পারে।
আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া ও কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ১৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।