বিএনপি-জামায়াতের কারানির্যাতিত নেতাদের ‘মিলনমেলা’ কক্সবাজারে

বিএনপি-জামায়াতের কারানির্যাতিত নেতাদের ‘মিলনমেলা’ কক্সবাজারে

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির মৎস্যজীবী বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য লুৎফুর রহমান কাজল বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বর জনগণের সাথে প্রতারণা করে আওয়ামী লীগ সরকার গায়ের জোরে মানুষের ভোটাধিকার হরণ করে তথাকথিত নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠনই প্রমাণ করে এদেশের জনগণ কোন গণতান্ত্রিক সরকারের অধীনে বসবাস করছে না। তারা আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে যে তামাশার নির্বাচন জাতির সামনে মঞ্চায়ন করেছে তা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে এদেশের দেশপ্রেমিক জনতা।

বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারকে দেশের ইতিহাসে দুঃশাসনের প্রতীক মন্তব্য করে তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের দমন-পীড়ন ও গ্রেপ্তার বন্ধ না করলে আওয়ামী লীগকে অতীতের স্বৈরাচারদের মতোই করুণ পরিণতি বরণ করতে হবে।

রবিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে পৌরসভার আওতাধীন কলাতলী ১২ নাম্বার ওয়ার্ড বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত কারা নির্যাতিত নেতাদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় নেতা লুৎফুর রহমান কাজল এসব কথা বলেন।

তিনি কারা নির্যাতিত নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, কারা নির্যাতিত নেতাকর্মীরা গণতন্ত্র পুনঃরুদ্ধার আন্দোলনের সোনালী ইতিহাসের অংশ। দেশের মৃতপ্রায় গণতন্ত্রকে পুনরুজ্জীবিত করার চলমান আন্দোলনে যে সকল নেতাকর্মী মিথ্যা, বানোয়াট ও গায়েবী মামলার আসামী হয়ে কারাবরণ করেছেন তাঁরা একদিন সোনালী ইতিহাসের গর্বিত অংশ হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে আমাদের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে বেগম জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র পুনঃরুদ্ধার করা।

তাই আগামীর যে কোন আন্দোলন কর্মসূচী সফল করতে সবাইকে প্রস্তত থাকার আহবান জানান বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা লুৎফুর রহমান কাজল।
১২ নাম্বার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে ও সাবেক জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সরওয়ার রোমন ও যুবদল নেতা লিয়াকত আলী পারভেজের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও কারা নির্যাতিত নেতা রাশেদ মোহাম্মদ আলী, ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও নির্যাতিত নেতা শওকত আলম, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কারা নির্যাতিত নেতা শহীদুল ইসলাম বাহাদুর, জেলা যুবদলের সভাপতি ছৈয়দ আহমদ উজ্জল, সাধারণ সম্পাদক জিসান উদ্দিন জিসান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক এডঃ ইউনুচ, রামু উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও কারা নির্যাতিত নেতা টিপু সুলতান চৌধুরী, জেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম হাসান, ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপির অর্থ সম্পাদক ও কারা নির্যাতিত নেতা আব্দু শুক্কুর, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও কারা নির্যাতিত নেতা ফাহিমুর রহমান ফাহিম, জেলা যুবদলের যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক ও কারা নির্যাতিত নেতা দোলন ধর।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম আরা স্বপ্না, জেলা বিএনপি সদস্য সাবেক পিপি এডঃ শাহাব উদ্দিন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি অধ্যাপক আজিজুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন জিকু, কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী দলের সদস্য সাবেক কমিশনার সালামত উল্লাহ্ বাবুল, রামু উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল আলম, পৌর জামায়াতের সেক্রেটারী ও কারা নির্যাতিত নেতা আবদুল্লাহ্ আল ফারুখ, রামু উপজেলা জামায়াতের সহ-সেক্রেটারী হারুন উর রশীদ, পৌর বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আমির আলী, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রাশেদুল হক রাসেল, রামু উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল বশর বাবু, পৌর বিএনপি নেতা বোরহান উদ্দিন রানা, খুরুশকুল ইউনিয়ন বিএনপির য্গ্মু-আহবায়ক আব্দুল রহিম, পোকখালী বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম সেলিম, বিএনপি নেতা এনামুল হক, জেলা যুবদলের সহ-সাধারণ সম্পাদক জাহেদুর রহমান জাহেদ, হারুন উর রশীদ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি মোহাম্মদ মুরাদ, ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, শহর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ্ আল আমিন, যুবদল নেতা জয়নাল, আব্দু শুক্কুর, সাবেক ছাত্রদল নেতা ফারুখ আজম, শহর যুবদলের ক্রীড়া সম্পাদক ও নির্যাতিত নেতা নাছির উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন সাঈদী, মোজাম্মেল হক, সোনা মিয়া, মোস্তাক আহমদ, কলিম উল্লাহ, রেজাউল হক, শেখ আবদুল্লাহ্ ভুট্টো, মনজুর আলম, মোহাম্মদ পারভেজ, নাছির আলম, জসিম উদ্দিন, ছাব্বির হোসেন বাদশা, এনামুল হক, মোহাম্মদ শাহাজাহান, ইয়াছিন আরফাত, জাহাঙ্গীর আলম, আব্দু রশীদ, ছাত্রদল নেতা ইনজামামুল হক প্রমূখ।

এসময় কারা নির্যাতিত নেতারা লুৎফুর রহমান কাজলের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।