৩৫ লাখ টাকায় মাহমুদুল্লাহকে কিনলো শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব

 

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের এবারের প্লেয়ার্স ড্রাফটে সর্বোচ্চ টাকা দিয়ে কেনা হলো জাতীয় দলের অলরাউন্ডার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে। ৩৫ লাখ টাকায় ফর্মে থাকা এই ক্রিকেটারকে দলে ভিড়িয়েছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। সমপরিমাণ অর্থে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে কিনেছে আবাহনী। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকায় এনামুল হক বিজয়কে কিনেছে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব।

আজ সোমবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বেলা ১১টা থেকে শুরু হয়েছে প্লেয়ার্স ড্রাফট। এর আগে ১২টি ক্লাব তাদের আগেরবারের দল থেকে তিনজন করে ক্রিকেটার ধরে রেখেছেন।

প্লেয়ার্স ড্রাফটের প্রথম রাউন্ডে নিজেদের প্রথম পছন্দের দুইজন করে খেলোয়াড় নিয়েছে অংশগ্রহণকারী ক্লাবগুলো। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী নিয়েছে রুবেল হোসেন এবং জহুরুল ইসলাম অমিকে। পরের রাউন্ডে তারা দলে নিয়েছে জাতীয় দলের নিয়মিত মুখ মেহেদি হাসান মিরাজ এবং অলরাউন্ডার দেলোয়ার হোসেনকে।

একনজরে দেখে নেওয়া যাক এখন পর্যন্ত কে কোন দল পেয়েছে-

শেখ জামাল ধানমণ্ডি : মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, নাসির হোসেন, ইলিয়াস সানি

আবাহনী লিমিটেড : রুবেল হোসেন

লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ : মোমিনুল হক

প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব : এনামুল হক বিজয়

খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি : রবিউল হক

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স : রনি তালুকদার

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব : আব্দুল মজিদ, শফিউল ইসলাম

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব : এনামুল হক

শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব : সৌম্য সরকার

ব্রাদার্স ইউনিয়ন : ফজলে রাব্বি

উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাব : তানজিল হাসান তামিম

বিকেএসপি : মাহমুদুল হাসান জয়

পহেলা মার্চ থেকে দেশের একমাত্র লিস্ট-এ টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াবে। তার আগে ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ক্লাবগুলো একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট খেলে নিজেদের ঝালাই করবে। এবার মোট সাত ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। তবে পারিশ্রমিকে হেরফের আছে অভিজ্ঞতা আর পারফরম্যান্সের বিচারে। এ প্লাস ক্যাটাগরিতে কেবল মাশরাফি আর মাহমুদুল্লাহই পাবেন ৩৫ লাখ টাকা করে।