তিন কিশোরকে চাপা দিয়ে পালিয়ে গেলো হানিফ বাস, একজনের মৃত্যু

চকরিয়ায় বাস-মাইক্রোবাস মুখোমুখি, নিহত ৪ ও আহত ১১

চকরিয়ায় বাস-মাইক্রোবাস মুখোমুখি, নিহত ৪ ও আহত ১১

কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ায় যাত্রীবাহী হানিফ বাসের চাপায় আমিন উল্লাহ (১৭) নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে। নিহত আমিন উল্লাহ উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের নতুন পাড়া গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে।

শুক্রবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে মহাসড়কের ডুলাহাজারাস্থ বনানী নামক এলাকায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাম্মদ সোলাইমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে স্থানীয় লোকজন ঘাতক বাসটি আটকের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। পরে বিপরীত দীক থেকে আসা একই কোম্পানির অারেকটি বাস আটক করে লোকজন। এ নিয়ে মহাসড়কে এক ঘন্টা ধরে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।

পরে মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার পর নিহত কিশোর আমিন উল্লাহ ও তার দুইজন বন্ধু ডুলাহাজারার বনানী এলাকায় মহাসড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। ওই সময় কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামগামী একটি যাত্রীবাহী হানিফ বাস তাদের পেছনে স্বজোরে ধাক্কা দিলে এতে ছিটকে পড়ে আমিন উল্লাহ। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মালুমঘাট মেমোরিয়াল খ্রিস্টান হাসপাতালে যান। ওখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন সাংবাদিকদের জানান, কক্সবাজার মহাসড়কের ডুলাহাজারা বনানী নামক এলাকায় বাসের চাপায় এক কিশোর নিহত হওয়ার বিষয়টি লোকজন তাদের জানালে ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠানো হয়।

পুলিশ লাশের প্রাথমিক প্রতিবেদন তৈরি করে আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।