কক্সবাজারের ট্রাফিক পরিদর্শক আজহারুলের ঝুলন্ত মৃতদেহ ঢাকার ফ্ল্যাটে

রাজধানী ঢাকার উত্তরায় আজহারুল ইসলাম (৪৪) নামে এক পুলিশ কর্মকর্তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে উত্তরার ৯ নম্বর সেক্টরের ৩/ডি সড়কের তিন নম্বর বাসায় ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়। তিনি কক্সবাজার জেলা ট্রাফিক পুলিশে পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

উত্তরা পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মঞ্জুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, আজহারুল ইসলাম কক্সবাজারের ট্রাফিক পরিদর্শক (টিআই) হিসাবে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর সদরের দামাদর্জিতে। উত্তরার ওই বাসায় স্ত্রী ও তিন ছেলেমেয়েকে নিয়ে ভাড়ায় থাকতেন তিনি। চলতি সপ্তাহে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে বদলি হয়ে কক্সবাজারে যান আজহারুল। ঢাকায় বদলির জন্য আবেদন করার কথা বলে ছুটিতে উত্তরার বাসায় আসেন তিনি।

মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, আজ সকাল ১০টার দিকে তার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় ফোন করে জানানো হয়, আজহারুল নিজ ঘরের ফ্যানের সঙ্গে রশি বেঁধে ‘আত্মহত্যা’ করেছেন। খবর পেয়ে ওই ফ্লাটে গিয়ে আজহারুলকে তার বিছানায় শোয়া অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। সেখান থেকে তাকে উত্তরা আধুনিক মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আজহারুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

মঞ্জুরুল ইসলাম আরও জানান, ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহে আজহারুল ইসলাম ‘আত্মহত্যা’ করেছেন। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

নিহতের ভাই মিনহাজুল ইসলাম জানান, আজহারুল ইসলাম ‘আত্মহত্যা’ করেছেন বলে ধারণা করছেন তিনি। তবে কী কারণে ওই পুলিশ কর্মকর্তা ‘আত্মহত্যা’ করেছেন তার স্পষ্ট ধারণা দিতে পারেননি তিনি।