ফিরলেন ৪ নেতা

আলমগীর ফরিদের বহিস্কার আদেশ প্রত্যাহার করল বিএনপি

কক্সবাজারের দুই দ্বীপ উপজেলা মহেশখালী ও কুতুবদিয়াকে নিয়ে গঠিত কক্সবাজার-০২ সংসদীয় আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আলমগীর মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদসহ সাবেক দুই সাংসদ ও আরো দুই নেতা বিএনপিতে ফিরেছেন।

বুধবার বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

ফিরে আসা চার নেতা হলেন মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সাবেক সাংসদ আলমগীর মো. মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ, রাঙামাটির সাবেক সাংসদ মনি স্বপন দেওয়ান, নেত্রকোনা জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম শফিকুল কাদের সুজা ও পাবনার সদর উপজেলা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি ওমর ফারুক।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইতোপূর্বে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের জন্য ওই চারজনকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। দলীয় গঠনতন্ত্রের ধারা অনুযায়ী তাঁদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর আরেক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের জন্য জামালপুর জেলাধীন বকশীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুর রউফ তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. মানিক সওদাগরকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। দলীয় গঠনতন্ত্রের ধারা অনুযায়ী তাঁদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সেদিন আরেক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের জন্য বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য চৌধুরী তানবীর আহমদ সিদ্দিকীকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল। দলের চেয়ারপারসন বরাবর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দলীয় গঠনতন্ত্রের ৫(গ) ধারা অনুযায়ী তাঁর অব্যাহতি প্রত্যাহার করা হয়।

এছাড়া দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের জন্য বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সাবেক সদস্য ও রেড ক্রিসেন্টের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ শহীদুল হক জামাল, টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এনামুল করিম অটল, চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. আবদুল হান্নান, ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ পারভেজ, বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক আলমগীর কবির ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য ও সাবেক হুইপ আবু ইউসুফ মো. খলিলুর রহমানকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। দলীয় গঠনতন্ত্রের ধারা অনুযায়ী তাঁদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়।

এছাড়াও দলীয় গঠনতন্ত্রের ধারা অনুযায়ী স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেওয়া চাঁদপুর জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এস এ সুলতান টিটুকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদে পুনর্বহাল করা হয়।

প্রসঙ্গত, আলমগীর মো. মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ দীর্ঘদিন ধরে তাঁর বহিস্কার আদেশ প্রত্যাহারের চেষ্টা করে আসছিলেন। অবশেষে তিনি সফল হলেন।