স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র নিলেন তিন জামায়াত নেতা

স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র নিলেন তিন জামায়াত নেতা

স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র নিলেন তিন জামায়াত নেতা

চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসার কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র ও ভোটার তালিকা-সম্বলিত সিডি সংগ্রহ শুরু করেছেন বিভিন্ন দল ও জোটের প্রার্থী এবং তাদের কর্মী-সমর্থকরা। শুক্রবার থেকে সুযোগ থাকলেও গত দুদিন ব্যাংক বন্ধ থাকায় রোববার থেকে ফরম সংগ্রহ করেন তারা।

এদিন (১১ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের তিনজন, বিএনপির চারজন, স্বতন্ত্র হিসেবে জামায়াত ইসলামীর তিনজনসহ মোট সাতজন এবং ইসলামী ফ্রন্টের দুজন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। এর মধ্যে একজন সম্ভাব্য প্রার্থী দুটি আসন থেকে ফরম কেনেন।

রোববার চট্টগ্রামে মনোনয়নপত্র বিতরণ হয়েছে মোট ১৬টি। বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান।

তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রের ঘোষণা অনুযায়ী গত শুক্রবার থেকে মনোনয়নপত্র বিক্রির কথা থাকলেও শুক্র ও শনিবার ব্যাংক বন্ধ থাকায় কেউ তা সংগ্রহ করতে পারেননি। আজ ১৬টি মনোনয়নপত্র বিক্রি হয়েছে। সকাল থেকে মনোনয়নপত্র ও ভোটার তালিকা-সম্বলিত সিডি সংগ্রহের জন্য বেশ চাপ ছিলে।’

মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেন যারা
চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী, চান্দগাঁও) ও চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালি-বাকলিয়া) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে দুটি মনোনয়নপত্র নিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. আবদুচ ছালাম।

চট্টগ্রাম-১০ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে ফরম নিয়েছেন নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ।

বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে মনিরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম- ২ (ফটিকছড়ি) আসনে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী ও সরোয়ার আলমগীর এবং চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসনে মো. নূরুল মোস্তফা।

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন জামায়াত ইসলামীর সাবেক দুই সংসদ সদস্য শাহজাহান চৌধুরী ও আ ন ম শামসুল ইসলাম। তারা দুজনই চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া) আসন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে উপজেলা জামায়াতের আমির ও উপজেলা চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

ইসলামী ফ্রন্টের নামে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর) আসনে আবুল বাশার মো. জয়নাল আবেদিন এবং চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা) আসনে এম এ মতিন।

এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আরও মনোনয়ন পত্র নিয়েছেন চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনে এমদাদুল হক, চট্টগ্রাম-১০ (ডবলমুরিং) আসনে সাবিনা খাতুন, চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে রেজাউল করিম এবং চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে আবু তালেব হেলালী।

জেলা নির্বাচন অফিসার মনির হোসেন খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘শুধুমাত্র জেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে ভোটার তালিকার সিডি সংগ্রহ করা যাবে। তবে জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে থেকেও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মনোনয়নপত্র সংগ্রহের জন্য নির্বাচন কার্যালয়ে এসে ভোটার তালিকার সিডি সংগ্রহ করতে হবে। সিডি সংগ্রহের জন্য তার নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি ইউনিয়ন বা ওয়ার্ডের বিপরীতে ৫০০ টাকা করে সোনালী ব্যাংকে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। চালানের কপি জমা দিয়েই সিডি ও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে।’

মনির হোসেন খান বলেন, মনোনয়ন ফরম নেয়ার পর একই স্থানে জমাও দিতে হবে। মনোনয়নপত্রের সঙ্গে জামানত হিসেবে প্রার্থীকে ২০ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। যারা দলীয় প্রার্থী হবেন তাদের মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার সময় দলের মনোনীত পত্রটি লাগবে। আগামী ১৯ নভেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে প্রার্থীদের।