কক্সবাজারে নতুন মামলায় জেলা আমীর-সেক্রেটারিসহ জামায়াত-বিএনপির ২০০ আসামি

কক্সবাজার-রামুর দুই মামলায় আগাম জামিন পেলেন ৩৫ বিএনপি-জামায়াত নেতা-কর্মী

কক্সবাজার-রামুর দুই মামলায় আগাম জামিন পেলেন ৩৫ বিএনপি-জামায়াত নেতা-কর্মী

কক্সবাজার সদর মডেল থানায় আবারও বিএনপি-জামায়াত নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এবারের মামলায় ৬০ জনকে এজাহারনামীয় ও ১৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

কক্সবাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দূর্লভ চন্দ্র দাশ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইন ও বিস্ফোরক আইনে মামলাটি করেছেন। ৭ নভেম্বর মামলাটি রেকর্ড করা হয়। এই মামলাতেই গ্রেপ্তার হওয়া কক্সবাজার পৌর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কাসেমকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

মামলাটির এজাহারনামীয় অন্য আসামিদের মধ্যে রয়েছেন কক্সবাজার জেলা জামায়াতের আমীর মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা জামায়াত সেক্রেটারি ও কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম রহিম উল্লাহ, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল আলম বাহাদুর ওরফে ভিপি বাহাদূর, জেলা ছাত্র শিবির সভাপতি রবিউল আলম, শহর ছাত্র শিবির সভাপতি রিদওয়ানুল হক জিসান, সেক্রেটারি সেলিম উদ্দীন, কক্সবাজার পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রাশেদ মোহাম্মদ আলী, জেলা শ্রমিক দল সভাপতি ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রদল নেতা সরওয়ার রোমন, জেলা যুবদল সভাপতি সৈয়দ আহামদ উজ্জল, জেলা ছাত্রদল সভাপতি শাহাদাত হোসেন রিপন, সাধারণ সম্পাদক ফাহিমুর রহমান ফাহিম, শহর ছাত্রদল সভাপতি এনামুল হক এনাম, সাধারণ সম্পাদক মিনারুল কবির আল আমিন, পৌর বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন, শহর জামায়াত আমীর সাঈদুল আলম, ভারুয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান চেয়ারম্যান।

এছাড়াও রয়েছেন দীল মোহাম্মদ মেম্বার, ফয়েজ উল্লাহ মেম্বার, ঈদগাঁওয়ের ছাত্রদল নেতা আজমগীর তাজ জনি, মোহাম্মদ মুরাদ, কামাল উদ্দিন, সাবেক শিবির নেতা শফিউল আলম খন্দকার, জামায়াত নেতা জাহাঙ্গীর কাসেম, জাহেদুল ইসলাম, আয়ুব মোল্লা, শ্রমিক নেতা আমিনুল ইসলাম হাসান, রিয়াজ মোহাম্মদ শাকিল, হাফেজ আহামদ, মোজাম্মেল হক, সাদ্দাম হোসেন, রেজাউল করিম, ছাত্রদল নেতা আশরাফ ইমরান, মোবারক হোসেন, হাসান মোহাম্মদ ইয়াসিন, আবু তাহের মুন্না, নুরুল আজিম, সিরাজুল হকসহ ৬০ জন।

তবে এ ব্যাপারে পুলিশের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।