কক্সবাজারে ট্রলারে ডাকাতি, চার জেলে গুলিবিদ্ধ

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলে ট্রলার ডাকাতির ঘটনায় চার জেলে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। শনিবার (২৮ জুলাই) বিকাল চারটার দিকে মহেশখালী থেকে সাগরের ২০ নটিক্যাল মাইল দূরে এ ঘটনা ঘটেছে।

গুলবিদ্ধ জেলেরা হলেন— মহেশখালী উপজেলার মজিদছড়া এলাকার কালা মিয়ার ছেলে ছৈয়দ নূর ( ৩৫), একই এলাকার মো. ছিদ্দিকের ছেলে আব্দুল জলিল (৩০), খোরশেদ আলমের ছেলে ছৈয়দ আলম (২৫) ও মো. ইসহাকের ছেলে রেজাউল করিম (৪০)। তাদেরকে উদ্ধার করে রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হহয়েছে।

জলদস্যুদের গুলিতে আহত ছৈয়দ নূর বলেন, ‘১২ জনের একটি জলদস্যু বাহিনী দুটি ট্রলারে এসে আমাদের ট্রলারটি ঘিরে ফেলে। ডাকাতরা আমাদের নগদ অর্থ ও জাল মাছ ছিনিয়ে নেয়। তারপর ট্রলার মালিকের কাছে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণের টাকা দিতে দেরি হওয়ায় কিছুক্ষণ পরপর আমাদের ওপরে গুলি ছুড়ে।’

তিনি বলেন, ‘রাত পৌনে আটটার দিকে আমাদের মালিক বিকাশের মাধ্যমে একলাখ ৫০ হাজার টাকা পাঠালে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তারা আমাদের ছেড়ে দেয়।’

হামলার শিকার এমবি আল মদিনা ট্রলারের মালিক মো. সোহেল উদ্দিন বলেন, ‘জেলেদের নম্বর থেকে কল দিয়ে জলদস্যুরা আমার কাছে মুক্তিপণ দাবি করে। কিছুক্ষণ পরপর তারা জেলেদের গুলি করছে জানতে পেরে বিকাশের মাধ্যমে তাদের কাছে একলাখ ৫০ হাজার টাকা পাঠিয়েছি। এরপর তারা জেলেদের ছেড়ে দেয়।’ আহত চার জেলে বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলেও তিনি জানান।

কক্সবাজার সদর হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ আপন হোসেন মানিক জানান, রাত ১০ টার দিকে গুলিবিদ্ধ চার জেলেকে আনা হয়। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস জানান, জেলেদের পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি মৌখিকভাবে পুলিশকে জানানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।