সরওয়ারের শেষ পথসভায় পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ১৫!

সরওয়ারের শেষ পথসভায় পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ১৫!

সরওয়ারের শেষ পথসভায় পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ১৫!

নাগরিক কমিটি মনোনিত ‘নারিকেল গাছ’ প্রতীকের মেয়র প্রার্থী, সাবেক মেয়র সরওয়ার কামালের সমর্থনে ২৩ জুলাই বাদ মাগরিব কালুর দোকান হাফেজ আহমদ ফিলিং স্টেশনে নির্বাচনী শেষ পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাজারো জনতা অংশগ্রহণ করেন।

জনসভা শুরুর পূর্ব মূহুর্তে মেয়র প্রার্থী সরওয়ার কামালের নেতৃত্বে নিজ এলাকা থেকে একটি মিছিল কালুর দোকান হয়ে পথসভায় যোগদান করতে আসলে পুলিশ বিনাউসকানিতে মেয়র প্রার্থী সরওয়ার কামালসহ নেতা-কর্মীদের উপর লাটিচার্জ ও ধাওয়া করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ওই সময় অন্তত ১৫ জন নেতা-কর্মী আহত হন।

এসময় পথসভাস্থলে থাকা সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

পরে যথারীতি পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মধ্যদিয়ে পথসভার কার্যক্রম শুরু হয়।

নাগরিক কমিটির আহবায়ক গোলাম কিবরিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথসভায় মেয়র প্রার্থী সরওয়ার কামাল বলেছেন, নারিকেল গাছ মার্কার গণজোয়ার দেখে আ.লীগ প্রার্থী দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। প্রতিটি জনপদে যখন নারিকেল গাছ মার্কার জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে তখন আ.লীগ প্রার্থী পুলিশ ব্যবহার করে আমাদের পথসভা ও মিছিলে বাধা সৃষ্টি করে আতংক সৃষ্টি করার চক্রান্ত করছে।

তিনি বলেন, ইনশা আল্লাহ কোন চক্রান্ত এবং যড়যন্ত্র আমাদের বিজয়কে ঠেকাতে পারবে না।

তিনি অবিলম্বে মিছিলে হামলাকারী পুলিশদের প্রত্যাহার দাবি করেন। পাশাপাশি সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানান।

তিনি মনে করেন, পক্ষপাতদুষ্ট পুলিশ দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন করা সম্ভব হবে না। তিনি আ.লীগের এসকল জুলুম ও অন্যায় আচরণের প্রতিশোধ ২৫ জুলাই নারিকেল গাছ মার্কায় ভোট দিয়ে জবাব দেয়ার জন্য পৌরবাসীর প্রতি আহবান জানান।

পথসভায় আরো বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম রহিমুল্লাহ, সাবেক কক্্সু ভিপি মো. সৈয়দ করিমসহ অন্যান্য গণ্যমান্য নেতারা।