ভারুয়াখালীতে হামলা চালিয়ে বৃদ্ধার ঘর ভেঙ্গে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা


কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালী ইউনিয়নের করিম সিকদার পাড়া এলাকার ৫০ বছরের দখলীয় ভিটে জমির গড়ে তুলা বসত ঘর ভেঙ্গে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। ওই এলাকার মৃত ছালেহ আহ দের ছেলে আব্দুল হাকিমের প্রায় ৫০ বছরের দখলীয় ভিটে জমি শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় স্থানীয় আবুল হোসেন মুন্সির নেৃতৃত্বে ২০ থেকে ২৫ জনের সন্ত্রাসী দল দেশীয় তৈরি অস্ত্র, লোহার রড, দা, কিরিছসহ বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্রের সজ্জিত হয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই সন্ত্রাসীর বাহিনীটি অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে আব্দুল হাকিমের পরিবারকে। সন্ত্রাসীরা ত্রাস চালিয়ে আব্দুল হাকিমের একমাত্র শেষ সম্ভল ঘরটি ভেঙ্গে চুরমার করে বাড়ির ব্যবহৃত সমস্ত জিনিসপত্র লুটপাট করে নেয়
স্থানীয় সাবেক শিক্ষক মোজাফ্ফর আহমদ ও নুরুল আজিম লায়লা, নজির আহমদ সাংবাদিকদের জানান, প্রকৃত পক্ষে জায়গাাটি আব্দুল হাকিম গংদের। স্থানীয় কিছু কুচক্রী মহলের ইন্দনে আবুল হোসেন মুন্সি অন্যায়ভাবে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ঘরটি জবর দখলের পায়তারা চালাচ্ছে।
জমির প্রকৃত মালিক আব্দুল হাকিম বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের বিচার দিয়েছিলাম। এরপরেও আবুল হোসেন মুন্সিগং কোন প্রকার পরিষদের হাজির হননি।
স্থানীয় ইউ.পি সদস্য মুসলেম উদ্দিন জানিয়েছেন, আব্দুল হাকিম পরিষদের বিচার দায়ের করেছিলেন উক্ত জায়গা নিয়ে কিন্তু আবুল হোসেন মুন্সিগং পরিষদের হাজির হননি।
বিগত ২ বছর আগে ওই জায়গায় আব্দুল হাকিম একটি ঘর তৈরি করেন।
তিনি বলেন , আমি শুনেছি আজকে বাহিরে কিছু লোকজন এনে অব্দুল হাকি দের ঘরটি ভেঙ্গে দিয়ে সমস্ত মালপত্র লুটপাট করে নিয়ে গেছে। এই ঘটনায় আবুল হোসেন মুন্সিগং ঈদগাও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে আমাদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগে আমরা হাজির হয়ে কাগজপত্র সংশৃষ্ট কর্মকর্তাকে দেখালে সেখানেও কোনপ্রকার উক্ত জায়গার কাগজপত্র দেখাতে পারেনি তিনি।
বর্তমেোন উক্ত জায়গা নিয়ে উভয় পক্ষে মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে। বর্তমানে ঘর ভেঙ্গে দেওয়ার কারণে পরিবার পরিজন নিয়ে খোলা আকাশে নিচে বসবাস করছেন স্থানীয় আব্দুল হাকিম এর পরিবার। উক্ত জায়গার বিষয় নিয়ে আবুল হোসেন মুন্সিগং আব্দুল হাকিমের পরিবার কে ৩/৪ টি বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করে যাচ্ছেন। এই বিষয়ে আব্দুল হাকিমের পরিবার প্রসাশনের উপরস্থ কর্মকর্তাদের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।