পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ছাত্রলীগের ইশতিয়াক-তানিম

কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিনে কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে জমা দেয়া মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমদ জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসাইন তানিম। এই দুইজনের মধ্যে ইশতিয়াক আহমদ জয় পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড ও মোরশেদ হোসাইন তানিম ৫নং ওয়ার্ড থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার (৩ জুলাই) কক্সবাজার পৌর নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন ছিল। জেলা নির্বাচনী কার্যালয় সূত্র এই ছাত্রনেতার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আগামি ২৫ জুলাই এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারিত রয়েছে। বুধবার (৪ জুলাই) প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে।

একাধিক সূত্র জানিয়েছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশ ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীমের অনুরোধে কক্সবাজার পৌরসভার কাউন্সিলর পদ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসাইন তানিম।

দলীয় সূত্রগুলো মতে, মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের দলীয় প্রার্থী মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যানের জয় নিশ্চিত করতে দলের তৃণমূল থেকে উচ্চ পর্যায় পর্যন্ত অত্যন্ত কঠোর হয়েছেন। মন জয় করে ভোটারদের ভোট নিয়েই তাকে মেয়র করতে সবাই বদ্ধপরিকর। এজন্যই দল ও অঙ্গ-সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীকে একজোট হয়ে নিরলসভাবে কাজ করতে কেন্দ্রের নির্দেশনা দিয়েছে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

সূত্র মতে, ছাত্রলীগের জেলা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক যদি নিজেদের নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তাহলে মেয়রের প্রচারণা নিয়ে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। তাই ইশতিয়াক ও তানিমকে কাউন্সিলর প্রার্থী থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসাইন তানিম সাংবাদিকদের বলেন, কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে জয়ী হওয়া দলের জন্য অনেক জরুরী।

তাদের মতে, দলীয় মেয়রপ্রার্থী মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যানের প্রচারণার জন্য আমাদের কাজ করতে হবে। তাই আমরা কাউন্সিলর প্রার্থী থেকে সরে দাঁড়িয়েছি।

তাছাড়াও তাদের সামনে আরো সময়-সুযোগ রয়েছে বলেও মনে করেন জেলা ছাত্রলীগের সর্বোচ্চ এই দুই নেতা।