‘ইয়াবা ডন’ জসিম ইয়াবাসহ ঢাকায় গ্রেপ্তার

মহেশখালীতে দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১৭ বিএনপি-জামায়াত নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার

মহেশখালীতে দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১৭ বিএনপি-জামায়াত নেতা-কর্মী গ্রেপ্তার

ইয়াবা পাচার সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য ও নব্য ‘ইয়াবা ডন’ জসিম উদ্দিন ঢাকায় গ্রেপ্তার হয়েছে। ৮ হাজার ৬০০ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ৫ দিন আগে ঢাকার এয়ার পোর্ট রোডে ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া জসিম উখিয়া উপজেলার জালিয়া পালং ইউনিয়নের সোনার পাড়াস্থ ডেইল পাড়া গ্রামের আহমদ হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানান, সড়ক ও সাগরপথে ইয়াবা ট্যাবলেট পাচার ও ব্যবসার সাথে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত। পুলিশকে ম্যানেজ করে প্রকাশ্যে এই ব্যবসা করলেও ধরাছোঁযার বাইরে ছিল ইয়াবা সিন্ডিকেট সদস্য জসিম উদ্দিন।

সূত্র মতে, ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত হয়ে রাতারাতি বড় লোক হয়ে উঠে এই জসিম উদ্দিন। অবশেষে ঢাকায় ডিবি পুলিশের হাতে আটকা পড়েছে।

একাধিক সূত্র জানান, গ্রেপ্তার হওয়া জসিম উদ্দিন ইয়াবা ব্যবসা করে দু্ই স্ত্রীর জন্য ২টি বহুতল ভবন নির্মাণসহ গাড়ি ও বিপুল টাকার মালিক হয়েছে। অথচ বছর দুয়েক আগেও এই যুবক এলাকায় বেকার ছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছেন, ইয়াবা ব্যবসায়ী জসিমকে মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে গিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদকালে ইয়াবা ব্যবসায় কারা কারা জড়িত এধরনের প্রশ্নে সে অনেকের নাম ঠিকানা বলেছে।

এদিকে গত শুক্রবার সোনার পাড়ায় সাদেক আলীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ ৩ জনকে আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা হলো সাদেক আলীর ছেলে সোজানোল আলম (৪৫), সাবান মাহমুদ ইমন (২০) ও মতি মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম (২২)।

জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পরিচালক আহসানের নেতৃত্বে একদল সাদা পোষাকধারী অভিযান চালিয়ে সাদেক আলীর বাড়ি থেকে এক হাজার ইয়াবা ট্যাবলেটসহ তাদের আটক করেন। ওই সময় অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে ইয়াবা ব্যবসার প্রধান হোতা সাদেক আলী লাফ দিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!