মৃত্যুর কারণ এখনও ধোঁয়াশা

ইসলামপুরের তরুণ ব্যবসায়ী সেলিমের লাশ মর্গে

ইসলামপুরের তরুণ ব্যবসায়ী সেলিমের লাশ মর্গে

ইসলামপুরের তরুণ ব্যবসায়ী সেলিমের লাশ মর্গে

কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর ইউনিয়নের তরুণ ব্যবসায়ী সেলিম উল্লাহর লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন তার ছোট ভাই। তবে মৃত্যুর কারণ সঠিক বলতে পারছেন না স্বজনরা।

খুন না স্বাভাবিক মৃত্যু এ নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা। সূত্র দাবি করছেন, ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একাধিক ব্যক্তিকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

সেলিমের ছোট ভাই মুসলিম উদ্দিন জানান, তার বড় ভাই সেলিম উল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্যবসা বাণিজ্যের সুবাদে যাতায়াত করতেন। রবিবার (২৫ ফেব্রয়ারি) বিকালে হঠাৎ তারা সংবাদ পান তার ভাইকে কক্সবাজারের একটি হোটেল থেকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে সন্ধ্যার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, এ সংবাদ পেয়ে তারা পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে হাসপাতালে ছুটে যান এবং গিয়ে জানেন, সেলিমের লাশ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

মৃত্যুর সঠিক কারণ উদঘাটনে পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছা ও প্রশাসনের দায়িত্বের ভিত্তিতে সোমবার ময়না তদন্ত করা হবে বলে জানান নিহতের ভাই।

মৃত ঘোষণার পরপরই থানা পুলিশের একটি দল উদ্ধারস্থল হোটেল তথা কটেজে পরিদর্শনপূর্বক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেল সংশ্লিষ্ট একাধিকজনকে পুলিশ হেফাজতে নেয় বলে জানান সেলিমের ছোট ভাই।

সেলিম ৫ সন্তানের বাবা এবং তিনি ইসলামপুর ইউনিয়নের নাপিতখালী নতুন অফিস খেলার মাঠ সংলগ্ন মরহুম শফিউল আলমের ছেলে। তিনি কয়েক বছর আগে থেকে পার্শ্ববর্তী ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ঢালার দুয়ার নামক গ্রামে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন।

এদিকে এই ব্যবসায়ী তরুণের আকস্মিক মৃত্যুর সংবাদ শুনে সকলে একটিই প্রশ্ন তুলেছেন, সেলিম কি ঠান্ডা মাথায় খুনের শিকার নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে?

তারা এই ক্ল্যু বের করতে প্রশাসনের আন্তরিক প্রচেষ্টা কামনা করছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!