সুবাস্তু টাওয়ারে আপন জুয়েলার্স সিলগালা, বিভিন্ন শো রুমে অভিযান

সুবাস্তু টাওয়ারে আপন জুয়েলার্স সিলগালা, বিভিন্ন শো রুমে অভিযান

সুবাস্তু টাওয়ারে আপন জুয়েলার্স সিলগালা, বিভিন্ন শো রুমে অভিযান

রাজধানীর গুলশান, উত্তরা, মৌচাক ও সীমান্ত স্কয়ারে আপন জুয়েলার্সের ৫টি দোকানে অভিযান চালিয়েছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। রবিবার সকাল থেকে এ অভিযান শুরু হয়।

জানা যায়, অভিযানের সময় বন্ধ পায়ায় রাজধানীর গুলশানের সুবাস্তু টাওয়ারে অবস্থিত আপন জুয়েলার্সের দোকান সিলগালা করে দিয়েছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ।

রবিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ সেখানে অভিযানে যায়। এ সময় দোকানটি বন্ধ পাওয়ায় তা সিলগালা করে দেওয়া হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মঈনুল খান জানান, সুবাস্তু টাওয়ার, উত্তরা, সীমান্ত স্কয়ার, মৌচাকসহ আপন জুয়েলার্সের মোট ৫টি দোকানে অভিযান চালানো হয়। এ সময় সুবাস্তু টাওয়ারের দোকানটি বন্ধ পাওয়ায় তা সিলগালা করে দেওয়া হয়।

ব্যাংক হিসাব তথ্যের গড়মিলের ভিত্তিতে আপন জুয়েলার্সের দোকানগুলোতে পর্যায়ক্রমে অভিযান চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ভ্যাটের কর্মকর্তারা ও র‌্যাবের ফোর্সের সদস্যরা।

বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই তরুণী ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ও তার ছেলে শাফাত আহমেদের ‘ডার্টি মানি’র তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। এরপর শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়। এর মধ্যে শুল্ক গোয়েন্দা বাংলাদেশ ব্যাংককে তাদের আর্থিক লেনদেনের যাবতীয় তথ্যাদিও চেয়ে পাঠিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত পাঁচ বছরে দেশে কোনো বৈধ বাণিজ্যিক আমদানি না থাকায় প্রাথমিকভাবে শুল্ক গোয়েন্দার কাছে তাদের স্বর্ণ ও হীরার ব্যবসায় ‘অস্বচ্ছতা’ প্রতীয়মান হয়েছে।