কাঁদলেন এবং কাঁদালেন ওমর সানি-মৌসুমী

কাঁদলেন এবং কাঁদালেন ওমর সানি-মৌসুমী

কাঁদলেন এবং কাঁদালেন ওমর সানি-মৌসুমী

মঙ্গলবার রাতে এফডিসিতে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে নতুন করে ভোট গণনা করা হয়। ভোট গণনা শেষে যখন ওমর সানী ও মৌসুমী সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেরিয়ে পড়েন, সে সময় কান্নার শব্দ পাওয়া যায়।

সহশিল্পীরা শুরুতে ওমর সানিকে ঘিরে ধরে কান্নাকাটি করতে থাকেন। সবাইকে নিজের মতো করে সান্ত্বনা দিয়ে গাড়ির দিকে এগিয়ে যান সানী। এরপর মৌসুমী বের হলে তাকেও ঘিরে ধরেন অনেক সহশিল্পীরা।

এভাবেই মৌসুমী ও ওমর সানীকে এফডিসি থেকে বিদায় জানায় সহশিল্পীদের একটা অংশ।

মৌসুমী ও ওমর সানীকে জড়িয়ে ধরে যাদের সবচেয়ে বেশি কাদতে দেখা গেছে, মধ্য আছেন কোষাধ্যক্ষ পদে নির্বাচিত কমল ও কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য জেসমিন। তাদের দাবি, সভাপতি পদে ওমর সানিকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে। শিল্পীদের কাছে তিনি যতটা জনপ্রিয়, তার হারার কোনো কথা না।

মৌসুমী-ওমর সানি দম্পতি তাদের সবাইকে বুকে টেনে সান্ত্বনা দেন। মন দিয়ে সবাইকে কাজ করে যেতে বলেন।

মৌসুমী বলেন, ‘আমি আসলে ওদের এমন আবেগ-অনুভূতি প্রকাশ দেখে কী বলব বুঝতে পারছি না। এটাই আসলে আমাদের শিল্পীসমাজ। এমন একটা পরিবেশ-পরিস্থিতি আজ তৈরি হবে, এটা বুঝতে পারিনি। সব শিল্পীকে ভালোবাসি ও শ্রদ্ধা করি।’

সহশিল্পীদের কাছ থেকে এমন ভালোবাসা পেয়ে ওমর সানিও চোখের পানি আটকাতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘এখনো কেউ মানতেই চায় না আমি হেরেছি। তারা হাউমাউ করে কান্নাকাটি করছে। শিল্পীরা আমাকে যে এভাবে ভালোবেসেছে, এটাই আমার জন্য সবচেয়ে বড় বিজয়। আমি শুধু এটুকু বলব, আমার পুরো অভিনয়জীবনে এমন নির্বাচন দেখিনি।’

উল্লেখ্য, এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে ওমর সানী ও কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্য মৌসুমী প্রতিদ্বন্দিতা করেছিলেন। ওমর সানি হেরে গেলেও জয়ী হন মৌসুমী।