তুরস্কে আবারও এরদোগান সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র ব্যর্থ!

তুরস্কে আবারও এরদোগান সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র ব্যর্থ!

তুরস্কে আবারও এরদোগান সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র ব্যর্থ!

তুরস্কে আরো একটি সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দিয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। এরদোগান সরকারের বিরোধিরা মে দিবসকে কেন্দ্র করে বড় ধরনের বিক্ষোভ-সমাবেশের পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আগে থেকেই কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করায় তাদের সে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারেনি বলে দাবি করা হচ্ছে।

গোয়েন্দা তথ্যে বলা হয়েছে, সরকার বিরোধীরা পরিকল্পনা অনুযায়ী ইস্তাম্বুলের তাকসিম স্কয়ারে জড়ো হতে পারলে সেটা ভয়াবহ রূপ দিতে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ারও গোপন ষড়যন্ত্র করেছিল। এ জন্য তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করেছিল যার প্রমাণ তাদের কাছে ছিল।

জানা যাচ্ছে, সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে তাকসিম স্কয়ারে মে দিবসে সমাবেশ করার চেষ্টা করলে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে বিক্ষোভকারীদের। এসময় ইস্তাম্বুলের বিভিন্ন এলাকায় থেকে দুইশতাধিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় তুরস্কেও প্রতিবছর মে দিবস বেশ ঘটা করে পালন করা হয়। প্রতিবার মে দিবসে তুরস্কের বিভিন্ন শ্রমিক ইউনিয়ন মিছিল করে ইস্তাম্বুলের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত তাকসিম স্কয়ারে জড়ো হয়।

এ বছর আগে থেকেই গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাকসিম স্কয়ারে সমাবেশ নিষিদ্ধ করে সরকার। নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও বেশ কিছুসংখ্যক লোক সেখানে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের চেষ্টায় শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ওদিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে কয়েক সপ্তাহ ধরে এই তাকসিম স্কয়ার ঘিরেই সরকার বিরোধী বিক্ষোভ চলেছিল। এ কারণেই এবার তাকসিম স্কয়ারে সমাবেশ নিষিদ্ধ করা ছাড়াও ইস্তাম্বুল জুড়ে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়। আকাশে হেলিকপ্টার চক্কর দিতেও দেখা গেছে।

সংবিধান সংস্কার নিয়ে গণভোটে সামান্য ব্যবধানে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের জয়ের কারণে এ বছর মে দিবস ঘিরে আগে থেকেই উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

ইস্তাম্বুল উপকণ্ঠে মেসিডিয়েকোইয়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদুনে গ্যাস এবং রবার বুলেট ব্যবহার করে। ওই বিক্ষোভকারীরা মিছিল করে তাসকিম স্কয়ারের দিকে আগ্রসর হওয়ার চেষ্টা করছিল।

তারা ‘তাকসিম আমাদের এবং আমাদেরই থাকবে’ বলে শ্লোগান দেয়। দোগান নিউজ এজেন্সি জানায়, দুই বিক্ষোভকারী তাকসিম স্কয়ারে ঢুকে পড়লে সঙ্গে সঙ্গে তাদের আটক করা হয়।

ইস্তাম্বুলের গভর্নরের কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, মোট ২০৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

এছাড়াও ৪০টি পেট্রোল বোমা, ১৭টি হ্যান্ডগ্রেনেড, ও ১৭৬টি বাজি জব্দ করা হয়েছে।