লামায় করোনায় প্রথম মৃত্যু এক গৃহবধূর, দাফন করলেন কোয়ান্টাম স্বেচ্ছাসেবীরা

লামায় করোনায় প্রথম মৃত্যু এক গৃহবধূর, দাফন করলেন কোয়ান্টাম স্বেচ্ছাসেবীরা

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

পার্বত্য বান্দরবানের লামা উপজেলায় প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন আমেনা বেগম (৪০) নামের এক গৃহবধূ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা মৃত গৃহবধূর নামাজে জানাজা ও দাফন করেন।

বৃহস্পতিবার যোহরের নামাজের পর উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের মুসলিম পাড়াস্থ জামে মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে ওই গৃহবধূর লাশের দাফন করা হয়।

মৃত গৃহবধূর স্বামী বাবুল হোসেন ও স্থানীয় সূত্র জানিয়েছেন, করোনার উপসর্গ নিয়ে ২৪ মে মুসলিম পাড়ার বাসিন্দা গৃহবধূ আমেনা বেগম লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। তার অবস্থার অবনতি হলে একইদিন উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠান দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা। সেখানে ভর্তি করার পর দায়িত্বরত চিকিৎসকরা আমেনা বেগমের নমুনা সংগ্রহ করে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠালে রিপোর্ট ‘পজিটিভ’ আসে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে গৃহবধূ আমেনা বেগম মারা যান।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রেজা রশীদ গৃহবধূর দাফনের জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীদের খবর দেন। পরে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার মো. পারভেজ মাসুদের নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবীর একটি টিম স্বাস্থ্যবিধি মেনে গৃহবধূ আমেনা বেগমের দাফন কাজ শেষ করেন। এ সময় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য, সাংবাদিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

দাফনের পর মৃত আমেনা বেগমের পরিবার ও প্রতিবেশীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

এ বিষয়ে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার মো. পারভেজ মাসুদ বলেন, মৃতের অন্তিমযাত্রায় মমতার পরশ বোলানোর লক্ষ্যেই পরিচালিত হচ্ছে কোয়ান্টাম দাফন সেবা। এরই ধারাবাহিকতায় উপজেলায় এই প্রথম মমতার পরশে করোনায় মৃত গৃহবধূর দাফন করেছি। শুরু থেকে এই পর্যন্ত আমরা সারাদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত প্রায় ৩ হাজার মানুষের দাফন ও সৎকার করার পাশাপাশি মৃতের পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য পরামর্শ দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবীরা। ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গৃহবধূ আমেনা বেগমের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রেজা রশীদ বলেন, থানা পুলিশের কাছ থেকে বিষয়টি জানার পর উপজেলার সরই ইউনিয়নস্থ কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীদের খবর দিই। তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে গৃহবধূ আমেনা বেগমের লাশ দাফন করেছেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!