‘লম্বা মানব’ জিন্নাত আলীর ১০ ফুট লম্বা কবর, বানাতে হল বাঁশের খাটিয়া

‘লম্বা মানব’ জিন্নাত আলীর ১০ ফুট লম্বা কবর, বানাতে হল বাঁশের খাটিয়া

মহিউদ্দিন মাহী
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

বিশ্বের এই সময়ের সবচেয়ে বড় কবরেই শায়িত হয়েছেন কক্সবাজারের রামুর ‘লম্বা মানব’ জিন্নাত আলী। ১০ ফুট লম্বা এবং ৪ ফুট প্রস্থের দীর্ঘতম এই কবরে বিকেল তিনটায় নামাজে জানাযা শেষে শায়িত করা হয় তাকে। রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের বড়বিল গ্রামের বাসিন্দা এই জিন্নাত আলীর মৃহদেহ নিয়ে যেতে একটি বাঁশের খাটিয়া তৈরি করা হয়। সাধারণ মসজিদের যে ধরণের খাটিয়া আছে ওই খাটিয়াতে তার জায়গা হয়নি। ছোট হওয়াতে তৈরিকৃত বাঁশের খাটিয়া করেই তাকে নিয়ে যাওয়া হয় রামুর থোয়াইগাকাটা বড় কবরস্থানে।

সেখানে জানাযা শেষে তাকে দাফন করা হয়। তার নামাযে জানাযা পড়ান বড়বিল মসজিদের ইমাম মাহমুদুল হাসান।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন জিন্নাত আলীর বড় ভাই ইলিয়াস আলী।

তিনি জানান, মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) ভোররাত ৩টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট) চিকিৎসাধীন অবস্থায় জিন্নাত আলী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সেখান থেকে এম্ব্যুালেন্সে করে কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়নের বড়বিল গ্রামের নিজ বাড়িতে ফিরেন সকাল সাড়ে ৯টায়।

‘লম্বা মানব’ জিন্নাত আলীর ১০ ফুট লম্বা কবর, বানাতে হল বাঁশের খাটিয়া

খুব গরিব ঘরের ছেলে জিন্নাত আলী। বাবা একজন কৃষক। জিন্নাত আলী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যাবার পর টাকা সংকটের কারণে এম্ব্যুালেন্সে করে মৃতদেহ আনতে হিমশিম খেতে হয়েছে।

তার দাফনের কাপড়, এম্ব্যুলেন্সের ভাড়া ও অন্যান্য খরচ মিলে ১৮ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। সব টাকা জোগাড় করতে হয়েছে। আজকের এই দিনে কেউ তার পরিবারে একটি টাকাও দেয়নি, দাবি করেন ইলিয়াস আলী।

ইলিয়াস আলীর মতে, ‘আমার ভাই পৃথিবী থেকে চলে গেছে। সরকারের দেয়া একটি দোকান এবং ঘরবাড়ি রয়েছে।’

তার ছোট ভাই জিন্নাত আলীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। পাশাপাশি তার বয়স্ক মা-বাবাকে কেউ যদি সহযোগিতা করতে চান তাও করতে পারবেন বলে জানান তিনি।

ইলিয়াস জানান, আগামী ৪ দিন পর তার ছোট ভাই জিন্নাত আলীর কুলখানি করা হবে।

সেলফিতে বিরক্ত ‘লম্বা মানুষ’ জিন্নাত!

পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা মানুষ জিন্নাত আলীর জানাযায় বেশি মানুষ সমাগম করতে দেয়নি রামু উপজেলা প্রশাসন। চলমান করোনাভাইরাসের কারণে উপজেলার বাইরে থেকেও কাউকে ঢুকতে দেয়া হয়নি। জানাযার জন্য থোয়াইগাকাটা বড় কবরস্থানে দুই/তিনশ মানুষ জড়ো হলেও জানাযার মূল মাঠে অর্ধশতাধিক মানুষ জানাযা পড়তে পেরেছেন।

প্রসঙ্গত, ১১ বছর বয়স থেকেই হরনমোনজনিত কারণে উচ্চতা বাড়তে থাকে জিন্নাত আলীর। শরীরের ডায়েবেটিস, শাষকষ্টসহ বিভিন্ন রোগে ভোগছিলেন। ২০১৮ সালে অক্টোবর মাসে জিন্নাত আলীকে চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। ওই সময়েই জিন্নাতের মস্তিষ্কে টিউমার রয়েছে জানান চিকিৎসকরা।

গিনেস রেকর্ড অনুযায়ী বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে দীর্ঘ ব্যক্তি হলেন মিশরের সুলতান কাসেম। তার উচ্চতা ৮ ফুট ৩ ইঞ্চি। আর ২২ বছর বয়সী জিন্নাত আলীর উচ্চতা ৮ ফুট ৬ ইঞ্চি।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!