রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি, হচ্ছে ৭৭০ শয্যার হাসপাতাল

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি, হচ্ছে ৭৭০ শয্যার হাসপাতাল

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে এখন পর্যন্ত কোনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর।

মঙ্গলবার সংস্থাটির বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, শিবির এলাকায় ভাইরাসটির বিস্তার রোধে ৭৭০ শয্যার একটি হাসপাতাল স্থাপনসহ নানা ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নে জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থাসহ বাংলাদেশ সরকার ও বিভিন্ন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সহায়তা দিচ্ছে বলে জানানো হয়েছে ওই বিবৃতিতে।

জরুরি সেবা ও সহায়তার কাজ ছাড়া শরণার্থী শিবির এলাকায় চলাফেরার ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেগত ৮ এপ্রিল নির্দেশনা জারি করে শরণার্থী ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক কমিশনার (আরআরআরসি)। ওই নির্দেশনার আওতায় স্বাস্থ্য, পুষ্টি, খাবার ও তেল সরবরাহ, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চালানোর অনুমতি রয়েছে।

ইউএনএইচসিআর’র বিবৃতিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবা দেওয়ার লক্ষে শরণার্থী শিবিরে ৭৭০ শয্যার একটি হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে মারাত্মক রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ করতে ২১‌২টি বিশেষ শয্যা থাকবে। এছাড়া বেশ কিছু কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষণ দিয়েছে সংস্থাটি। তারা সব মিলিয়ে ৪৩ হাজারেরও বেশি বাড়ি গিয়ে করোনা সংক্রান্ত সতর্কতার তথ্য জানিয়ে এসেছে।

ইউএনএইচসিআর’র বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, বিভিন্ন বিতরণ ও সেবা কেন্দ্রে মোট ১২৮টি হাত ধোয়ার ব্যবস্থা স্থাপন করা হয়েছে। এসব কেন্দ্র থেকে শরণার্থীরা রান্নার গ্যাস, পরিচ্ছন্নতা ও গৃহস্থালি সামগ্রী গ্রহণ করে থাকে। সেবা নেওয়ার আগে সকলের হাত ধোয়া নিশ্চিতে সহায়তা করছে স্বেচ্ছাসেবকেরা।

এছাড়া ঘুর্ণিঝড় ও মৌসুমী দুর্যোগ মোকাবিলায় গঠিত জরুরি সহায়ক দল বর্তমানে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বিভিন্ন কার্যক্রমে সহায়তা দিচ্ছে বলে জানানো হয় ওই বিবৃতিতে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!