‘ভগ্ন হৃদয়ে লিখছি, আমাদের রক্ষায় এগিয়ে আসুন’, আফগান চলচ্চিত্র নির্মাতার আবেগঘন চিঠি

‘ভগ্ন হৃদয়ে লিখছি, আমাদের রক্ষায় এগিয়ে আসুন’, আফগান চলচ্চিত্র নির্মাতার আবেগঘন চিঠি

বিশ্ব ডেস্ক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

দেশের চমৎকার সকল মানুষকে, বিশেষ করে চলচ্চিত্র নির্মাতাদের রক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আফগানিস্তানের চলচ্চিত্র নির্মাতা সাহরা কারিমি। এ জন্য তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে একটি আবেগঘন চিঠি লিখেছেন।

তালেবানরা রাজধানী কাবুল দখল করে নেয়া এবং প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়ার ঠিক দু’দিন আগে তিনি এই চিঠি লিখেছেন।

ইয়াহু নিউজে প্রকাশিত রিপোর্টে জানানো হচ্ছে- এতে তিনি লিখেছেন, ভগ্ন হৃদয়ে এই চিঠি লিখছি। গভীর আশা নিয়ে লিখছি যে, তালেবানদের কবল থেকে আমার সুন্দর দেশটাকে রক্ষায় আপনারা এগিয়ে আসবেন।

এতে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন, তালেবানরা পশ্চিমা কূটনীতিক, বেসামরিক জনগণ এবং আফগানদের টার্গেট করবে আফগানিস্তানের নতুন শাসক। তবে পরে এসব মানুষকে আকাশপথে উদ্ধারে ব্যাপক প্রচেষ্টা দেখা যায়।

সাহরা কারিমি তালেবানদের নৃশংসতা সম্পর্কে লিখেছেন, তারা আমাদের জনগণের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালিয়েছে। বহু শিশুকে অপহরণ করেছে। শুধু পোশাকের দোহাই দিয়ে তারা একজন নারীকে হত্যা করেছে। একজন জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতাকে নির্যাতন করে হত্যা করেছে তারা। প্রাগৈতিহাসিক এক কবিকে হত্যা করেছে। সরকারের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এমন মানুষদের হত্যা করেছে। আমাদের কাউকে কাউকে তারা প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝুঁলিয়েছে। লাখ লাখ মানুষকে বাস্তুচ্যুত করেছে। এসব প্রদেশ থেকে পালিয়ে পরিবারগুলো কাবুলে অবস্থান নিয়েছে। সেখানে তারা এক করুণ অবস্থার মুখে।

সাহরা কারিমি আরও লিখেন, ডাকাতির কারণে এবং দুধের অভাবে এসব আশ্রয় শিবিরে মারা যাচ্ছে শিশুরা। এক মানবিক সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে। তবে এখনও বিশ্ব এ নিয়ে নীরব। এই নীরবতায় আমাদের ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু আমরা জানি, এটা অন্যায়। আমরা জানি, আমাদের এসব মানুষকে এভাবে ফেলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ভুল। এক্ষেত্রে আপনাদের কণ্ঠ শুনতে চাই। আমার দেশের জন্য একজন চলচ্চিত্র প্রযোজক হিসেবে আমি যে কঠোর পরিশ্রম করেছি, তা বিনাশ হয়ে গেছে। তালেবানরা ক্ষমতা নিয়ে সব রকম আর্টস নিষিদ্ধ করবে। আমি এবং অন্য চলচ্চিত্রকাররা পরবর্তী হিট লিস্টে থাকতে পারি। নারীর অধিকার লঙ্ঘন করতে পারে তারা। আমাদের কণ্ঠকে স্তব্ধ করে দেয়া হতে পারে।

আন্তর্জাতিক বিনোদন সম্প্রদায়ের মধ্যে এসব বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান সাহরা কারিমি।

তিনি লিখেছেন, অনুগ্রহ করে আপনাদের চলচ্চিত্র নির্মাতা ও আর্টিস্টদের সমর্থন করে আমাদের কণ্ঠকে সমর্থন করুন। আপনাদের মিডিয়া এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে এই সত্যটা ছড়িয়ে দিন। বিশ্ব আমাদের দিকে দৃষ্টি দেয়নি। আফগানিস্তানের নারী, শিশু, আর্টিস্ট এবং চলচ্চিত্র নির্মাতাদের পক্ষে আমি আপনাদের সমর্থন ও জোরালো কণ্ঠ আশা করছি। এই মুহূর্তে এটাই আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় সাহায্য হতে পারে। তালেবানরা কাবুলের ক্ষমতা নেয়ার আগেই আমাদের সহায়তা করুন। আমাদের হাতে সামান্যই সময় আছে।

উল্লেখ্য, শনিবার একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন সাহরা কারিমি। তাতে ভীতসন্ত্রস্ত সাহরা কারিমিকে কাবুলের রাস্তায় দৌড়াতে দেখা যায়। তালেবানরা যতই অগ্রসর হচ্ছিল, এই ভীতি ততই বাড়তে থাকে। তিনি দৌড়াতে দৌড়াতে শ্বাসরুদ্ধকণ্ঠে বলতে থাকেন, শহরে প্রবেশ করেছে তালেবানরা। আমরা দৌঁড়ে সরে যাচ্ছি। প্রতিজন মানুষ ভয়ে ভীত।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!