ছেলে-মেয়েদের একসঙ্গে ক্লাস করতে দেবে না তালেবান

ছেলে-মেয়েদের একসঙ্গে ক্লাস করতে দেবে না তালেবান

বিশ্ব ডেস্ক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

আফগানিস্তানের নতুন শিক্ষামন্ত্রী তালেবান নেতা আবদুল বাকি হাক্কানি বলেছেন, নারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারবেন, তবে পুরুষদের থেকে আলাদা হয়ে ক্লাস করতে হবে তাদের। এমনকি বাধ্যতামূলকভাবে হিজাব পরতে হবে নারীদের। আর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বর্তমানে যেসব বিষয় পড়ানো হচ্ছে সেগুলো পর্যালোচনা করা হবে।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। খবর আল-জাজিরার।

আবদুল বাকি হাক্কানি বলেন, ‘শ্রেণিকক্ষে নারী ও পুরুষ শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে বসতে হবে। আমরা ছেলে-মেয়েদের একসঙ্গে ক্লাস করতে দেব না। সহশিক্ষারও অনুমোদন দেব না আমরা।’ আফগানিস্তানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে পাঠদানের বিষয়গুলো পর্যালোচনা করা হবে।

তিনি বলেন, ‘দেশে যা বিদ্যমান রয়েছে, তা দিয়েই আমরা দেশ গঠনের কাজ শুরু করব। আফগানিস্তানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পঠনপাঠন বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের বিশ্ববিদ্যালয়ের সমপর্যায়ে নিয়ে যেতে চাই।

সম্প্রতি আফগানিস্তানের সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তালেবানের এক মুখপাত্র সাইদ জাকরুল্লাহ হাশমানি বলেছেন, নারীরা সরকারি চাকরি করতে পারবেন। তবে তারা মন্ত্রী হতে পারবেন না।

তালেবানের এসব নির্দেশে ক্ষুব্ধ আফগান নারীরা। সম-অধিকারের দাবিতে সম্প্রতি কাবুলসহ দেশটির বিভিন্ন স্থানে তালেবানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছেন তারা। বিক্ষোভকারীদের ওপর তালেবানের হামলা চালানোর অভিযোগও উঠেছে।

দুই দশক পর আফগানিস্তানে ক্ষমতায় ফিরে এসেছে তালেবান। ধারণা করা হচ্ছিল, ১৯৯৬ সালে ক্ষমতা দখলের পর তালেবান নারীশিক্ষা নিষিদ্ধসহ যেসব কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছিল, এবারও তা ফিরিয়ে আনতে পারে। কিন্তু নারীশিক্ষার বিষয়ে ২০ বছর আগের নীতি থেকে তালেবান কিছুটা সরেছে বলে মনে হচ্ছে।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!