কলেজছাত্রীকে অপহরণ করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা কিশোর গ্যাংয়ের ৪ সদস্য

কলেজছাত্রীকে অপহরণ করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা কিশোর গ্যাংয়ের ৪ সদস্য

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

নাইক্ষ্যংছড়ি হাজি এম এ কালাম সরকারি কলেজের এক ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টার ঘটনায় কিশোর গ্যাংয়ের ৪ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আবুল হাশেম ওরফে কালু জানান, বেলা ২টার দিকে নাইক্ষ্যংছড়ি সদরের পূর্ব বিছামারা নুুুরুল হাকিমের দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়ুয়া মেয়ে তাজনিন আক্তার (১৭) নিজ শিক্ষা প্রতিষ্টান হাজি এম এ কালাম সরকারি কলেজ থেকে ক্লাস শেষে বাড়ি ফিরছিলেন টমটম গাড়িতে। ওই সময় পার্শ্ববর্তী কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের নতুন মিয়াজি পাড়ার আবদুল গফুর মিয়াজির ছেলে তামিম মিয়াজির নেতৃত্বে ৩/৪ জন যুবক তার পিছু নেয়। তারা অপর একটি টমটমে করে তাজনিনকে তাড়াতে থাকে।

তিনি জানান, এক পর্যায়ে ছাত্রীটি তার নিজ গ্রামের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়ে এক প্রতিবেশীর বাড়িতে ঢুকে যায়। বাড়ির দরজায় তালা মারা দেখে দৌঁড়ে অপর বাড়িতে আশ্রয় নিতে যাওয়ার পথে বখাটে তামিম মিয়াজি তাকে ঝাপটে ধরে টেনে নিয়ে আসে। শুরু হয় আর্তনাদ আর চিৎকার।

কালুু মিয়া জানান, চিৎকার শুনে তিনি নিজেও এগিয়ে আসেন। উদ্ধার করেন মেয়েটিকে। অপহরণকারি তামিম মিয়াজিকেও ধরে ফেলেন তিনি। কিন্ত এরই মাঝে তার অপেক্ষামান বন্ধুদের ফোনের কারণে আরও ১০/১২ জন বখাটে যুবক রাম দা, ছুরি নিয়ে চলে আসে গয়াল খামার এলাকায়। সৃষ্টি হয় এক অরাজকতার।

তখন পুরো গ্রামে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তারা কালু মিয়াকে মারতে দৌঁড়াতে থাকে, যেন ফিল্মী স্টাইল। অল্পের জন্যে তিনি বেঁচে যান। পরে গ্রামবাসী এগিয়ে আসলে মেয়েটি এবং কালু উদ্ধার হন। এ সময় জনতার হাতে ধরা পড়ে ওই ৪ বখাটে।

জনতার হাতে ধৃতদের থানা হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ। তারা হলো কচ্ছপিয়ার নতুন মিয়াজি পাড়ার গফুরের ছেলে তামিম, ইসমাইলের ছেলে রহিম উল্লাহ রিপন, খুরশেদের ছেলে মোঃ নবী ও একই ইউনিয়নের মৌলভীকাটার নুরুল কবিরের ছেলে শামশুউদ্দীন।

ওসি মোঃ আলমগীর হোসেন মঙ্গলবার রাতে জানান, থানায় আটক ৪ জনসহ ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

তিনি বলেন, কিশোর গ্যাং কিংবা বেআইনী কর্মকান্ডে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!