কক্সবাজারে এবি পার্টির প্রথম প্রতিষ্টাবার্ষিকীতে ইফতার বিতরণ ও আলোচনা

কক্সবাজারে এবি পার্টির প্রথম প্রতিষ্টাবার্ষিকীতে ইফতার বিতরণ ও আলোচনা

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

শ্রমজীবী মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণের মধ্যদিয়ে কক্সবাজারে আমার বাংলাদেশ পার্টির (এবি পার্টি) প্রথম প্রতিষ্টাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। রোববার (২ মে) এবি পার্টির কক্সবাজার জেলা শ্রমিক শাখার উদ্যোগে পৌর এলাকার ৬নং ওয়ার্ডের ইসলামাবাদ এলাকায় আলোচনা ও ইফতার মাহফিল করা হয়।

প্রতিষ্টা বার্ষিকীর এই আলোচনায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা ও এবি পার্টির কক্সবাজার জেলা সদস্য সচিব এডভোকেট গোলাম ফারুক খান কায়সার। এছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন এডভোকেট সালাহউদ্দিন আহমদ। এই আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন এবি পার্টি জেলা শ্রমিক শাখার সমন্বয়ক মোহাম্মদ হাসান।

আলোচনা সভা শেষে শহরতলীর বাসটার্মিনাল এলাকায় শ্রমিকদের নেতৃত্বে এবি পার্টির জেলা সদস্য সচিব এডভোকেট গোলাম ফারুক খান কায়সার, সহকারী সদস্য সচিব এডভোকেট সালাহউদ্দিন আহমদ, শ্রমিক শাখার জেলা সম্বন্বয়ক মোহাম্মদ হাসান, শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ মোস্তফা ও মোহাম্মদ ইউনুচ পথচারী, রিক্সা, সিএনজি, টমটম শ্রমিকদের মাঝে ইফতার বিতরণ করেন।

কক্সবাজারে এবি পার্টির প্রথম প্রতিষ্টাবার্ষিকীতে ইফতার বিতরণ ও আলোচনা
এবি পার্টির প্রথম প্রতিষ্টাবার্ষিকীতে ইফতার বিতরণ করছেন গোলাম ফারুক খান কায়সার

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এবি পার্টির জেলা সদস্য সচিব, কক্সবাজার আবাসিক হোটেল কর্মচারী ইউনিয়ন সভাপতি, কক্সবাজার শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সভাপতি ও জেলা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট গোলাম ফারুক খান কায়সার বলেন, এবি পার্টি প্রতিষ্ঠা হল এক বৎসর। এই এক বৎসরে করোনা মহামারীকালিন সময়ে সকলেই যখন ঘরবন্দি অবস্থায় ছিলেন, তখন সারাদেশসহ কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন স্থানে এবি পার্টির নেতা-কর্মীরা মাঠে ময়দানে কর্মহীন অসহায় মানুষের মাঝে ‘ফুড ব্যাংক’ প্রতিষ্ঠা করে বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী বিতরণ ও করোনা আক্রান্ত রোগীদের মাঝে ঘরে ঘরে গিয়ে ওষুধ সামগ্রীসহ অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করেছেন। তারা মানবতার সেবায় নিয়োজিত আছেন।

তিনি বলেন, আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পার্টি) জনগণকে সাথে নিয়ে তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হয়ে রাজনীতি করতে চায়। প্রচলিত ধারার রাজনীতিতে এবি পার্টি বিশ্বাসী নয়।

তিনি আহবান জানিয়ে বলেন, আসুন আপনারা সকলে এবি পার্টিতে যোগদান করে বাংলাদেশকে কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করে মহান মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার প্রতিষ্ঠা করি।

আলোচনা সভা শেষে বায়তুন নুর জামে মসজিদের খতিব মৌলানা আমান উল্লাহ দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন। পরে ওই মসজিদে উপস্থিত দেড়শতাধিক শিশু-কিশোর ও মুসল্লিদের ইফতারী বিতরণ করা হয়। এছাড়াও এবি পার্টির নেতা-কর্মীরা মুসল্লিদের সাথে ইফতারে অংশগ্রহণ করেন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!