কক্সবাজারে একদিনে করোনা শনাক্ত ৮৮ জন, শুধু সদরেই ৩৭

বিশেষ প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার জেলাসহ প্রতিবেশী পার্বত্য জেলা বান্দরবানে প্রতিনিয়ত করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে মঙ্গলবারও (১৩ এপ্রিল) ৫৫১ জন সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা পরীক্ষা করে ৮৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্থিত্ব মিলেছে। তবে ৪৬৩ জনের রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ এসেছে।

এ নিয়ে কক্সবাজার জেলায় এখন পর্যন্ত ৭ হাজার ২৭৭ জনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এদের মধ্যে কক্সবাজার সদর উপজেলায় সর্বাধিক ৩ হাজার ৫৮০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের বিশ্বস্ত সুত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সুত্র মতে, মঙ্গলবার শনাক্ত হওয়া ৮৮ জন করোনা রোগীর মধ্যে ৬ জন আগে আক্রান্ত হওয়া পুরাতন রোগীর ফলোআপ টেস্ট রিপোর্ট। এছাড়াও ১০ জন রোগী চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার। তবে মঙ্গলবার করোনা শনাক্ত হওয়া অবশিষ্ট ৭২ জনের সকলেই কক্সবাজার জেলা রোগী। তাদের মধ্যে আবার রোহিঙ্গা শরণার্থী ৮ জন।

সংশ্লিষ্টদের মতে, মঙ্গলবার একদিনে কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৩৭ জন, রামু উপজেলায় ১ জন, উখিয়া উপজেলায় ১০ জন, টেকনাফ উপজেলায় ৫ জন, চকরিয়া উপজেলায় ৩ জন, পেকুয়া উপজেলায় একজন এবং মহেশখালী উপজেলার ৭ জন রোগীর শরীরে করোনা শনাক্ত হয়।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হলো ৭ হাজার ২৭৭ জন। আক্রান্তদের মধ্যে শুধু কক্সবাজার সদর উপজেলার রোগী আছেন ৩ হাজার ৫৮০ জন। যা মোট করোনা রোগীর প্রায় অর্ধেক।

অপরদিকে গত ১২ এপ্রিল পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কক্সবাজার জেলায় মৃত্যুবরণ করেছেন ৮৮ জন। তাদের মধ্যে ১০ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী।

জেলায় আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার মাত্র ১.২৩ শতাংশ।

সুত্র মতে, গত ১২ এপ্রিল পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ৬ হাজার ১২৮ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮৪.৯৮ শতাংশ।

আক্রান্তদের মধ্যে গত ১২ এপ্রিল পর্যন্ত হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৭৭৮ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ১৫৯ জন। তাদের মধ্যে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রয়েছেন ৬০ জন, রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনে রয়েছেন ৪ জন, কক্সবাজার শহরের পশ্চিম বাহারছড়া ফ্রেন্ডশীপ SARI হাসপাতালে রয়েছেন ১৬ জন, রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের অভ্যন্তরে আইসোলেশন সেন্টার সমুহে রয়েছেন স্থানীয় জনগণ ৫৮ জন এবং রোহিঙ্গা শরণার্থী রয়েছেন ২১ জন।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!