ওসি প্রদীপ, আইসি লিয়াকতসহ ৭ জন ‘সাময়িক’ সাসপেন্ড

ওসি প্রদীপ, আইসি লিয়াকতসহ ৭ জনের ‘সাময়িক’ সাসপেন্ড

আনছার হোসেন
সম্পাদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যা মামলায় জেলে যাওয়া ৭ আসামিকে চাকুরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহার হওয়া ইনচার্জ ও ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলীকে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এবং জেলে যাওয়া অবশিষ্ট ৫ জন পুলিশ সদস্যকে পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বরখাস্ত করেছেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন কক্সবাজার ভিশন ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, টেকনাফ থানার ৯/২০২০ নাম্বার মামলায় (সিআর মামলা ৯৪/২০২০) টেকনাফের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য ৭ আসামির জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের জেলে পাঠানোর বিষয়টি গতকাল ৬ আগস্ট সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ জানতে পারে। তারপরই ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও আইসি লিয়াকত আলী পুলিশ পরিদর্শক হওয়ায় তাদের দুইজনকে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এবং অবশিষ্ট ৫ জন এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়াকে তাৎক্ষণিক চাকুরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই খুন হওয়া মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খানের বড় বোন ও মোঃ শামসুজ্জামানের সহধর্মিণী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস (৪২) বাদী হয়ে চাকুরি থেকে বরখাস্ত হওয়া প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলীসহ ৯ জনকে আসামি করে টেকনাফ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ৫ আগস্ট সকালে এই হত্যা মামলাটি দায়ের করেন।

ওই মামলায় গতকাল ৬ আগষ্ট বিকালে ৯ আসামির মধ্যে ৭ জন আত্মসমর্পণ করেন। এই ৭ জনের মধ্যে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, আইসি লিয়াকত আলী ও উপ-পরিদর্শক নন্দদুলালকে ৭ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। অন্য ৪ জনকে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অনুমতি দিয়েছেন ওই আদালতের বিচারক।

আদালতের মাধ্যমে মামলাটির তদন্তভার পেয়েছে কক্সবাজারস্থ র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১৫) ব্যাটালিয়ন। তারা ওই ৯ আসামির ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিল।

কিন্তু আদালতে জামিনের আবেদন দিয়েও হাজির মামলার দুই আসামি এসআই টুটুল ও কনস্টেবল মোস্তফা। তাদের বিষয়কে পুলিশ এখনও কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!