এমপি জাফরকে আ.লীগ থেকে ‘বহিস্কার’, মহাসড়কে সমর্থকদের অবরোধ

এমপি জাফরকে আ.লীগ থেকে ‘বহিস্কার’, মহাসড়কে সমর্থকদের অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমকে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের এক জরুরি সভায় দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে তাঁকে দলীয় পদ থেকে বহিস্কার করা হয়। এই ঘটনার পর তাঁর সমর্থকরা কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) রাত ৯টার পর থেকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়া অংশের ৩৯ কিলোমিটার সড়কের ২০টি পয়েন্টে অবস্থান নিয়েছেন জাফর আলমের সমর্থকরা।

বিক্ষুব্ধ সমর্থকরা মহাসড়কের অন্তত ২০ পয়েন্টে সড়কের ওপর টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন। এতে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়, আটকা পড়ে হাজারো যানবাহন।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) বিকালে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা আওয়ামী লীগ চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়।

এই খবর ছড়িয়ে পড়লে জাফর আলমের নির্বাচনী এলাকা চকরিয়া, পেকুয়া ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী, সমর্থকরা রাস্তায় নেমে এসে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেন।

খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (এসিল্যান্ড) মো. তানভীর হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ মহাসড়ক থেকে বিক্ষুব্ধদের সরাতে যান। কিন্তু হাজারো ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীর উপস্থিতির কারণে তারা পিছু হটতে বাধ্য হন।

শিক্ষিকাকে মারধরের মামলায় হাইকোর্টে জামিন পেলেন চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর
জাফর আলম এমপি

কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের।

তিনি বলেন, ‘মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার প্রায় ৩৯ কিলোমিটার মহাসড়কের একপ্রান্তের আজিজনগর এবং অপরপ্রান্তের খুটাখালী পর্যন্ত কিছু দূর পরপর অসংখ্য ব্যারিকেড দেয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। এই পরিস্থিতিতে সামান্য সংখ্যক পুলিশ দিয়ে কী-ই বা করার আছে।’

চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সদ্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগ সিন্ডিকেটনির্ভর রাজনীতি করে যাচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। এরই অংশ হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের বলয়ের নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে অগণতান্ত্রিক পন্থায় ও অন্যায্য সিদ্ধান্তের আলোকে বিএনপি-জামায়াত ও আগুন সন্ত্রাসীদের আতঙ্ক এমপি জাফর আলমকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন মর্মে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর ছড়িয়ে পড়ে।’

তিনি মনে করেন, ওই ঘটনার জের ধরেই দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনতা রাস্তায় নেমে এসেছে।

লিটু বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের এই অন্যায্য ও হটকারী সিদ্ধান্ত তুলে না নেয়া পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধই থাকবে।

এ বিষয়ে জানতে সাংসদ জাফর আলমকে ফোন করা হলে তিনি সাংবাদিকদের ফোন রিসিভড করেননি।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!