ঈদ জামাতে মসজিদে মসজিদে করোনা মুক্তির আকুতি

ঈদ জামাতে মসজিদে মসজিদে করোনা মুক্তির আকুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজার ভিশন ডটকম

দেশের পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার ও জেলার সর্বত্র আনন্দ উৎসব ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যদিয়ে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের বড় দু’টি ধর্মীয় উৎসবের একটি পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদের জামাতগুলোতে মসজিদে মসজিদে করোনাভাইরাস মহামারি থেকে মুক্তির জন্য প্রার্থনা করা হয়েছে। শুক্রবার (১৪ মে) সকাল ৮টায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান সংলগ্ন জামে মসজিদে জেলার প্রধান ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

এই ঈদ জামাতে নামাজের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈল, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এড. সিরাজুল মোস্তফা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আমিন আল পারভেজ।

নামাজ শেষে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি এবং করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে মুক্তির জন্য মোনাজাত করেন কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মাহমুদুল হক।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, অনিশ্চিত ভবিষ্যতের আশঙ্কার মধ্যেই এবারের ঈদ উদযাপিত হচ্ছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ঈদকে ঘিরে যে আনন্দ-উচ্ছাস থাকার কথা তা এবার ম্লান করে দিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস।

তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলায় ও সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনায় এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত করা হয়নি। তবে জেলাব্যাপী শারিরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় মসজিদের ভেতরে।

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ডিসি মামুনুর বলেন, এই ক্রান্তিলগ্নে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ করছি। পরিবার ও সমাজের জন্য সচেতন হোন। অবহেলা করে বিপদ ডেকে আনবেন না। ইনশা আল্লাহ, সবার ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে পৃথিবী থেকে মুক্তি নেবে করোনা মহামারি। আবারও সবাই প্রাণ খুলে হাসবে। হাতে হাত কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উন্নত ও সমৃদ্ধশারি দেশ গঠনে আত্মপ্রত্যয়ী হবে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (১৪ মে) সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত শহর, উপজেলা ও গ্রামাঞ্চলে পৃথক পৃথক ভাবে মসজিদে একাধিক ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

error: Content is protected!! অন্যের নিউজ নিয়ে আর কতদিন! এবার নিজে কিছু লিখতে চেষ্টা করুন!!