‘যৌন খেলা’য় মত্ত হয়ে ঘুমন্ত নারীকে ধর্ষণ করলেন ক্রিকেটার

যুক্তরাজ্যে ঘুমন্ত নারীকে ধর্ষণ করে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলেন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার অ্যালেক্স হেপবার্ন। গতকাল শুক্রবার ধর্ষনের অভিযোগ প্রমাণিত হলে ওর্সেস্টর আদালত তার জেল অনিবার্য বলে রায় দেয়। ওরচেস্টারশায়ারের সাবেক এই ক্রিকেটার ‘সেক্স কনকুয়েস্ট গেইমে’ (যৌন খেলায়) মত্ত হয়ে ধর্ষণ করেন বলে আদালতে প্রমাণিত হয়।

শুক্রবার আদালতের রায় ঘোষণার সময় হাত দিয়ে মুখ ঢেকে বসেছিলেন তেইশ বছর বয়সী হেপবার্ন। আর দোষী ঘোষণার পর কেঁদে ফেলেন তিনি।

ঘটনাটি গত বছরের এপ্রিলে তার সতীর্থ জোই ক্লার্কের ফ্ল্যাটে। ক্লার্কের সঙ্গে রাতে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হন এই নারী। রাত গভীর হলে বাথরুমে যাওয়ার উদ্দেশে ক্লার্ক রুমের বাইরে গেলে এই নারীকে ধর্ষণ করেন হেপবার্ন।

ধর্ষণের ঘটনাটি তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ ভয়ংকর কিছু তথ্য পায়। হেপবার্ন যৌন খেলায় মত্ত হয়ে ওই নারীকে ধর্ষণ করছেন বলে তথ্য পায়। প্রমাণ স্বরূপ পুলিশ আদালতে হোয়াটসঅ্যাপের মেসেজ প্রদর্শন করেন। তার সতীর্থ ক্লার্ককে দেওয়া একটি মেসেজ এমন ছিল, ওর্সেস্টরে কোনো মডেল বাকি নেই, যদি থাকে তাকেও নিয়ে আসব। মেসেজটি অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ ভাষায় লেখা ছিল।

হেপবার্ন আরও মেসেজ দেন, ‘গতরাতে আমার ৬০ নাম্বার ছিল, ওর্সেস্টরে শেষ সময়ে আমি ৮০জন পূরণ করব।’ ক্লার্কের সঙ্গে এবং হোয়াটস অ্যাপের গ্রুপ মেসেজে হেপবার্ন কুরুচিপূর্ণ মেসেজ আদান-প্রদান করেছেন।

অবশ্য আদালতে হেপবার্ন জানায়, সে প্রায় ২০ বোতল বিয়ার পান করায় মদ্যপ ছিল, কিন্তু এই নারীর সঙ্গে যা হয়েছে তা দু’জনের সম্মতিতেই। রুমের মধ্যে অল্প আলো থাকায় ওই নারী বুঝতেই পারেননি কার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছিলেন। পরে হেপবার্ন কথা বলায় বুঝতে পারে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!