শুটিংয়ে মূর্তি ভেঙে বিতর্কে সালমান খান

বক্সঅফিসে সালমান খানের ব্লকবাস্টার হিটের মধ্যে রয়েছে ‘দাবাং’ সিরিজের সিনেমাগুলো। ২০০ কোটির উপরে ব্যবসা করা এই সিরিজের তৃতীয় সিকুয়েলের শুটিংয়ে ব্যস্ত তিনি। কিন্তু দাবাং থ্রি নিয়ে একের পর এক ঝামেলায় পরতে হচ্ছে এই তারকাকে। এবার শুটিং সেট সরিয়ে নেওয়া নিয়ে নোটিশ পেলেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে মধ্যপ্রদেশের ধর্মীয় মান্ডু জেলায় শুটিং করছেন সালমান। জানা গেছে, ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের (আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া) পক্ষ থেকে দাবাং থ্রি-র দলকে অবিলম্বে ওই শুটিং সেট সরিয়ে নেওয়ার জন্য নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগ, গত শনিবার ছবির নির্মাতাদের কাছে এই নোটিশ পৌঁছলেও শুটিং সেট সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করা হয়নি।

ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের পক্ষে যে নোটিশ দাবাং থ্রি-র দলকে পাঠানো হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, দেশের প্রাচীন সৌধ ও পুরাতাত্ত্বিক স্থান সংক্রান্ত ১৯৫৮ সালের যে আইন রয়েছে তা মানেনি সালমানের দাবাং-থ্রির দল। এ ছাড়া মধ্যপ্রদেশের মহেশ্বর শহরে নর্মদার তীরে একটি দুর্গে শুটিং করার সময় নাকি একটি প্রাচীন মূর্তিও ভেঙে যায় বলেও অভিযোগ।

এ প্রসঙ্গে মধ্যপ্রদেশের সংস্কৃতি দপ্তরের মন্ত্রী বিজয়লক্ষ্মী সাধো গত সোমবারই জানিয়েছেন, যা হয়েছে তা এক্কেবারেই কাম্য নয়, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে কয়েকদিন আগে মহেশ্বর শহরের নর্মদার পাড়ে শুটিংয়ের সময় সালমন শিবলিঙ্গকে অপমান করছেন বলে অভিযোগ ওঠে। প্রকাশ্যে আসা একটি ছবিতে দেখা যায়, নর্মদার তীরে থাকা একটি শিবলিঙ্গের উপর একটি কাঠের তক্তা পেতে তার উপর দিয়ে হাঁটাচলা সালমান ও তার সেটের অন্যান্য কর্মীরা হাঁটাচলা করছেন। আর এই বিষয়টি নিয়েই তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়। অভিযোগ ওঠে সালমানের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হওয়ার ঠিক পরপরই ওই শিবলিঙ্গের উপর শুটিংয়ের জন্য লাগানো তক্তা সরিয়ে দেওয়া হয়। পুরো ঘটনার বিষয়ে অবশেষে সালমান নিজেই মুখ খুলেছেন।

দাবাং অভিনেতা বলেন, ‘আমি সবচেয়ে বড় শিবভক্ত। আপনারা যদি এখানে শুটিং করতে না দেন, তাহলে প্যাকআপ করে চলে যাব। মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের আগ্রহতেই আমি এখানে শুটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আমার এক ভাই এখানকার পুলিশ আধিকারিক ছিলেন। আমি এখানে আমার বাড়ি ভেবেই এসেছি। আমি শুটিংয়ের ছবি সাধারণত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করি না। তবে এ ক্ষেত্রে করছি কারণ এর নামের সঙ্গে মহেশ্বর শব্দটি আছে।’

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!