গদিচ্যুত বশির কোথায় কেউ জানে না, ক্ষমতায় সেনাবাহিনী

গদিচ্যুত বশির কোথায় কেউ জানে না, ক্ষমতায় সেনাবাহিনী

ছয়দিন ধরে চলা গণবিক্ষোভের মুখে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে সেনাবাহিনী উৎখাত করে ক্ষমতা গ্রহণ করেছে। একই সাথে প্রথমে বশিরকে গৃহবন্দি ও পরে গ্রেপ্তার করা হয়।

দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার টিভিতে এক ঘোষণায় বলেছেন, একটি সামরিক কাউন্সিল দু’বছর মেয়াদের এক অন্তর্বর্তী প্রশাসন পরিচালনা করবে এবং তার পর নতুন সংবিধানের আওতায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

গত ডিসেম্বর মাস থেকেই বশিরের বিরুদ্ধে জনতার বিক্ষোভ চলছিল এবং এসময় সহিংসতায় বেশি কিছু লোক নিহত হয়েছে।

উনিশশো উননব্বই সালে ব্রিগেডিয়ার ওমর আল বশির আরো কিছু ইসলামপন্থী সেনাকর্মকর্তাকে সাথে নিয়ে সুদানের সর্বময় ক্ষমতা দখল করেন।

তিনিই হচ্ছেন দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘকাল ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট। ক্ষমতাসীন হওয়ার পর তাকে উৎখাতের চেষ্টা এর আগেও হয়েছে- তবে তা সফল হয় নি।

গত বছর ডিসেম্বর মাস থেকে যে গণবিক্ষোভ শুরু হয় – তা প্রথমে ছিল দেশটির অর্থনৈতিক দুরবস্থা ও জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধির প্রতিবাদে।

তবে ধীরে ধীরে তা বশিরের বিরুদ্ধে আন্দোলনে পরিণত হয়।

তাকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল আওয়াদ ইবনে আউফ টিভিতে বলেন, দেশে এক বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল এবং জনগণ গরিব থেকে আরো গরিব হয়ে পড়ছিল। এই বিক্ষোভে যারা প্রাণ হারিয়েছেন তাদের জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন।

জেনারেল ইবনে আউফ বলেন, ওমর আল বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর একটি সামরিক কাউন্সিল দু’বছরব্যাপী অন্তর্বতী প্রশাসন চালাবে, এবং তার পর নতুন সংবিধানের অধীনে নির্বাচন হবে।

এ ছাড়া এক মাসব্যাপী কারফিউ এবং সব সীমান্ত বন্ধ রাখার কথাও ঘোষণা করা হয়। বলা হচ্ছে, ৭৫ বছর-বয়স্ক বশিরকে গ্রেপ্তার করে গোপন স্থানে নিরাপত্তা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

তবে বার্তা সংস্থা রয়টারের খবরে বলা হচ্ছে, খার্তুমের বিক্ষোভকারীরা অভ্যুত্থান নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে। একটি গ্রুপ বলছে, অন্তর্বর্তী সামরিক সরকার প্রতিষ্ঠার এই ঘোষণা তারা প্রত্যাখ্যান করছে, কারণ তারা বেসামরিক লোকদের দিয়ে গঠিত অন্তর্বর্তী সরকার চায়, সামরিক বাহিনীর লোকদের নয়।

সুদানে রুটির দাম বৃদ্ধির জেরে শুরু হওয়া বিক্ষোভে প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করেছে দেশটির সেনাবাহিনী।

বৃহস্পতিবার সকালে দেশটির রাজধানী খার্তুমের রাস্তায় সেনাবাহিনীর ট্যাঙ্ক টহল দিতে শুরু করেছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেশটির সেনাবাহিনী শিগগিরই গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা দেবে বলে প্রত্যাশা করা হয়। গত কয়েক মাস ধরে বশিরবিরোধী বিক্ষোভ করে আসছে দেশটির মানুষ।

টেলিভিশনের একজন উপস্থাপক বলেছেন, শিগগিরই সুদানের সেনাবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা দেবে। এ জন্য অপেক্ষা করুন।
এই ঘোষণার জন্য রাজধানী খার্তুমের রাস্তায় হাজার হাজার মানুষ অপেক্ষা করেন। রাজধানীতে সেনাবাহিনীর অন্তত দুটি ট্যাঙ্ক টহল দিতে দেখা গেছে; এর মধ্যে একটির ওপরে উঠে উল্লাস করে বিক্ষোভকারীরা।

জনতার দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর অবশেষে সুদানের সেনাবাহিনীর সেই ‘গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা’ আসে। এতে ৭৫ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করা ছাড়াও আগামী ২ বছর কীভাবে দেশটি পরিচালিত হবে, তার ফিরিস্তি দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে আচমকা আফ্রিকা দেশ সুদানের রাজধানী খার্তুমে ট্যাংক নিয়ে নামে সেনাবাহিনী। তাদের টহল জোরদারে টানা গণবিক্ষোভে জর্জরিত ওমর আল-বশিরের ভাগ্য অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়।

এরই মধ্যে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে এক অ্যাংকরের ঘোষণা দেশবাসীর নজর কাড়ে। তিনি বলেন, স্বল্পসময়ের মধ্যে সেনাবাহিনী ‘গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা’ দেবে, অপেক্ষা করুন।

ওই টিভি অ্যাংকর বিস্তারিত না বললেও রাজধানীর রাস্তায় নেমে আসে হাজারো জনতা। তারা বশিরকে পদচ্যুত করার উৎসব করতে থাকেন, সেনা সদস্যদের সঙ্গেই।

প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়ার কথা চাউর হলেও সেনাবাহিনীর সেই ঘোষণার ‘স্বল্পসময়’ যেন আর ফুরাচ্ছিল না।

দিনভর নানা নাটকীয়তা শেষে অবশেষে সুদানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আওয়াদ মোহাম্মেদ আহমেদ ইবনে আউফ রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সেনাবাহিনীর সেই ‘গুরুত্বপূর্ণ’ ঘোষণা দেন।

৩০ বছরের স্বৈরশাসক ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করার কথা তিনি পষ্ট করেই বলেন, ‘ওমর আল-বশিরকে তার কার্যালয় থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।’

সুদানের এই প্রথম ভাইস-প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রেসিডেন্টের পদত্যাগের পর থেকে সেনাবাহিনী ‘অন্তর্বর্তীকালীন’ হিসেবে ২ বছর দেশটি পরিচালনা করবে।

তিনি বলেন, সেনাবাহিনী সুদানে ৩ মাসের জরুরি অবস্থা জারি করেছে। ২০০৫ সালের সংবিধান বাতিল এবং রাষ্ট্রপতির শাসন, সংসদ ও মন্ত্রিপরিষদ বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

ওমর আল-বশির পরবর্তী সুদানের শাসনভার সেনা পরিষদের মাধ্যমে পরিচালিত হবে বলেও জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ৭৫ বছর বয়সী বশিরকে ‘নিরাপদ জায়গায়’ বন্দি করে রাখা হয়েছে এবং সেনা পরিষদ দেশ পরিচালনার কাজ শুরু করেছে।

আওয়াদ বলেন, ২৪ ঘণ্টার জন্য সুদানের আকাশসীমা এবং সীমান্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

ওমর আল-বশিরের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে হেগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের ওয়ারেন্ট রয়েছে। ২০০৩ সালে সুদানের দারফুরে সরকারি মদদে ‘গণহত্যা’ চালানো হয়। অভিযোগ রয়েছে, ওই অভিযানে ৩ লাখ মানুষকে হত্যা করা হয়।

চলতি মাসে গণবিক্ষোভের মুখে আলজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট আবদেল আজিজ বৌতেফ্লিকার ক্ষমতাচ্যুতির পর আফ্রিকা অঞ্চলের দেশ সুদানে ওমর আল-বশিরের ৩০ বছর শাসনের অবসান হলো।

১৯৮৯ সাল থেকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেশটিকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন ওমর আল-বশির। কিন্তু, গত কয়েক মাস ধরে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠছিল। তিন দশকের ক্ষমতার মেয়াদে প্রেসিডেন্ট বশির এই প্রথম বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছিলেন।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা রাজধানী খার্তুমে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সামনে জড়ো হওয়া কয়েক হাজার সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীকে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টাকালে সেনা সদস্যরা তাদের বাধা দেয়। গত ৬ এপ্রিল থেকে ওই সংঘর্ষে অন্তত ২২ জন নিহত হন, যাদের মধ্যে সশস্ত্র বাহিনীর ৬ সদস্যও ছিলেন।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!