মার্কিন সেরা বাস্কেটবল তারকা দিয়া ফোর্টেনব্রেরি যেভাবে এলেন ইসলাম ধর্মে

মার্কিন সেরা বাস্কেটবল তারকা দিয়া ফোর্টেনব্রেরি যেভাবে এলেন ইসলাম ধর্মে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘Southern Athletic Association’ বা SAA এর নারী বাস্কেটবল খেলোয়াড় এবং ‘Millsaps College’ এর শিক্ষার্থী দিয়া ফোর্টেনব্রেরি আরেকটি মাইল ফলক অর্জন করেছেন। SAA কর্তৃক তাকে এ বছরের নতুন খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

তবে তার এমন অর্জনের পরে তিনি তার জীবনের সবচেয়ে বড় একটি পরিবর্তন ঘটিয়েছেন আর তা হচ্ছে তিনি ইসলাম গ্রহণ করেছেন। তার একজন ঘনিষ্ঠ বন্ধুর নিকট থেকে ইসলাম সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে এই ধর্মের প্রতি তার অন্তরের টান থেকেই তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

দিয়া ফোর্টেনব্রেরি বলেন, ‘আমিই একমাত্র নারী নই যে তার মাথায় স্কার্ফ পরিধান করে এবং বলেন হ্যাঁ, আমি এখন মুসলিম হয়ে গিয়েছি। আমিই একমাত্র নারী নই যে বাস্কেট বল মাঠে স্পোর্টস হিজাব পরিধান করে আসি, এটি আসলে হৃদয়ের গভীর থেকে আসা এক অনুভূতি।’

দিয়া ফোর্টেনব্রেরি তার শৈশব থেকে একজন ব্যাপটিস্ট খ্রিষ্টান হিসেবে বেড়ে উঠেছিলেন।

তিনি বলেন, ‘রমজান মাসের কিছু পরে এবং ইসলাম গ্রহণের পরে আমি হিজাব পরিধান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’

‘যখন আমি কলেজ ক্যাম্পাসে যাই তখন আপনি দেখতে পাবেন যেসব শিক্ষার্থীরা আমাকে পূর্ব থেকে চিনেন এবং যারা চিনত না তাদের সবাই আমাকে দেখে অবাক হয়। এবং আপনি বৈষম্যের শিকার হয়েছেন এমন শব্দ আপনার চারপাশে শুনতে পাবেন। এ বিষয়টি আপনাকে পীড়া দিবে বিশেষত যখন আপনি জানবেন যে, আপনি যা করছেন তা আপনার হৃদয় থেকেই আসছে এবং হিজাব পরিধান করে আপনি যা অর্জন করেছেন তা আসলেই অতুলনীয়।’

তবে তিনি জানান, বাস্কেট বল মাঠে তার প্রশিক্ষক এবং অন্যান্য খেলোয়াড়রা তাকে এ বিষয়ে স্বাগত জানিয়েছে।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর দিয়া ফোর্টেনব্রেরি যেরকম প্রতিকূলতার মুখোমুখি হচ্ছেন তা কাটিয়ে উঠে তিনি বাস্কেট বলের আসন্ন প্রতিযোগিতার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

তিনি বলেন, ‘চলতি বছরে এসে আমি এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে চাই যে, এর পূর্বে আমি যেরকম নিপুণতা দেখিয়েছি বর্তমানে হিজাব পরিধান করে ঠিক সেরকমটি দেখাতে চাই।’

তিনি জানান, নাইকির মত অনেক বড় বড় ফ্যাশন ব্রান্ড বাজারে স্পোর্টস হিজাব নিয়ে আসাতে তার জন্য বিষয়টি আরো সহজ হয়েছে।

‘আমার মনে আছে আমি আমার প্রধান প্রশিক্ষকের সাথে আলোচনা করেছিলাম যে, এ অবস্থায় আমার ঠিক কি করা উচিত এবং আমি কি আমার খেলোয়াড় জীবনের জন্য সত্যিকারের কোনো আদর্শ ব্যক্তিকে অনুসরণ করবো। আর নাইকির স্পোর্টস হিজাব আসার পরে এটি নারীদের জন্য দ্বার উন্মুক্ত করে দিয়েছে। এর ফলে নারী খেলোয়াড়ের স্পোর্টস হিজাব পরিধান করা সকলের জন্য মোটামুটি গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছে। এর পূর্বে অনেক নারী সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতেন তিনি কি তার প্রিয় খেলাটি খেলতে নামবেন নাকি নামবেন না।’- শেষে দিয়া ফোর্টেনব্রেরি এমনটি জানান।
সূত্র: wjtv.com

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!