নিষিদ্ধ মাইকেল জ্যাকসনের গান!

মৃত্যুর এত বছর পরও মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে গবেষণা থেমে নেই। তাকে নিয়ে আলোচনা সমালোচনার শেষ নেই। এই পপ তারকা। গোড়ালির ওপর ভর করে অভিকর্ষকে উপেক্ষা করে কীভাবে তিনি সামনের দিকে ঝুঁকে নাচতেন তা নিয়ে অনেকেরই কৌতুহল এখনো! এসবের ভিড়ে এবার মাইকেল জ্যাকশনের ভক্তদের জন্য এলো দুঃসংবাদ।

সারা বিশ্বের রেডিও স্টেশনে মাইকেল জ্যাকশনের গান পরিবেশন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা এবং নিউজিল্যান্ডের কয়েকটি জনপ্রিয় রেডিও স্টেশনে নাকি গান শোনাচ্ছে না। জানা গেছে, জ্যাকসনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর তার গান প্রচার বন্ধের দাবি ওঠে। সেই দাবির মুখেই এই রেটিও চ্যানেলগুলো নিষিদ্ধ করছে মাইকেলের গান প্রচার।

বৃহস্পতিবার (০৭ মার্চ) সিডনির রেডিও গ্রুপ নোভা এন্টারটেইনমেন্ট ঘোষণা দেয়- জনগণের মতামতের প্রতিক্রিয়ার পর পপ সংগীত কিংবদন্তী মাইকেল জ্যাকসনের গান তারা আর গ্রহণ করছেন না।

সম্প্রতি ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ নামে একটি তথ্যচিত্রে ওয়েড রবসন ও জেমস সেফচাক দাবি করেন- শৈশবে মাইকেল জ্যাকসন তাদের অনেকবার যৌন হয়রানি করেছেন। তারা যখন ৭ বছরের শিশু ছিলেন সেই সময় মাইকেল জ্যাকশনের কাছে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন। সেই কারণে তারা চান মাইকেল জ্যাকসনের কোনো গান না প্রচার হোক।

অপরদিকে, কিংবদন্তী গায়ক মাইকেল জ্যাকসনের বিরুদ্ধে আনা এ অভিযোগ ‘বড় ধরনের একটি বিশ্বাসঘাতকতা’ বলে উল্লেখ করছে তার পরিবারের লোকজন। জনপ্রিয় মার্কিন এ পপ স্টার সংগীতশিল্পী, নৃত্যশিল্পী, গান লেখক, অভিনেতা, সমাজসেবক এবং ব্যবসায়ী ছিলেন।

মাত্র পাঁচ বছর বয়সে ১৯৬৩ সালে তিনি সংগীত জগতে আত্মপ্রকাশ করেন। বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং বিক্রি হওয়া অ্যালবামের সংগীতশিল্পীদের মধ্যে মাইকেল জ্যাকসন একজন।

কক্সবাজার ভিশন.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ
error: Content is protected !!